মহামারির মধ্যেই হোয়াইট হাউসে ট্রাম্পের পার্টি

নিউজ ডেস্ক:   করোনাভাইরাস পরিস্থিতির মধ্যেও স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে হোয়াইট হাউসে পার্টির আয়োজন করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের এক প্রতিবেদনে ‍বিষয়টি জানা গেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, হোয়াইট হাউস সব সময় ব্যস্ত থাকে। দিনে অন্তত তিন থেকে পাঁচটি অনুষ্ঠানের আয়োজন থাকেই। তবে এসব ছিল করোনাভাইরাস আসার আগপর্যন্ত। কিন্তু করোনাভাইরাস মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়ায় গত মার্চ মাসের শেষ দিকে এসব বন্ধ করা হয়। হোয়াইট হাউসের সব কার্যক্রম ভার্চ্যুয়ালি আয়োজন করা হতো। তবে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে এবার আর ভার্চ্যুয়ালি নয়, সরাসরি হোয়াইট হাউসে পার্টির আয়োজন করলেন ট্রাম্প।

মার্কিন এই সংবাদমাধ্যম জানায়, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে হোয়াইট হাউসে অনুষ্ঠান আয়োজন বন্ধ থাকায় অনেক কর্মীকে ছুটি দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু স্বাধীনতা দিবসের পার্টির আয়োজন করতে তারা এখন আবার সবাই যোগ দিয়েছেন। এই পার্টির আয়োজন নিয়ে হোয়াইট হাউসের সোশ্যাল সেক্রেটারি রিকি নিচেটাসহ সবাইকে বেশ উদ্যম নিয়ে কাজ করতে দেখা গেছে। রিকি নিচেটা এতদিন বাসা থেকেই কাজ করছিলেন।

তবে এবারে আয়োজনে কিছুটা ভিন্নতা ছিল। টেবিলের সঙ্গে আট বা ১০টি চেয়ার ছিল না। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতেই প্রতিটি টেবিলে মাত্র চারটি করে চেয়ার সাজানো ছিল। টেবিলের ওপর সাজানো ছিল ফুল ও খাবারের ডিশ। উল্লেখযোগ্য খাবারের মধ্যে ছিল হটডগ, হামবার্গার ও কোমল পানীয়।

অনুষ্ঠানের আগে হোয়াইট হাউসের ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি জাড ডিয়ারি বলেছিলেন, পার্টিতে আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, চিকিৎসক, নার্সসহ করোনা মোকাবিলায় সামনের সারিতে থাকা কর্মী ও তাদের পরিবারের সদস্যরা আছেন। এ ছাড়া ট্রাম্প প্রশাসনের সব সদস্যও উপস্থিত ছিলেন। তবে পার্টিতে ঠিক কতজন অতিথিকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে, তা তিনি বলেননি।

জাড ডিয়ারি বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেছেন, এ বছর স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের অনুষ্ঠান ২০১৯ সালের চেয়ে আলাদা হবে। কারণ, এখানে যারা উপস্থিত থাকবেন, তাদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টি আগে নিশ্চিত করতে হবে।’