পানি, গ্যাস, বিদ্যুতের দাম কমানোর দাবি: নাগরিক ঐক্য

নিউজ ডেস্ক:   করোনা টেস্ট ফি বাতিলসহ বাস ভাড়া, পানি, গ্যাস, বিদ্যুতের দাম কমানোর দাবি জানিয়েছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। তিনি বলেন, সরকারকে স্বাস্থ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করে অবিলম্বে করোনা পরীক্ষার ফি বাতিল করতে হবে। একইসঙ্গে পানির দাম, গ্যাসের দাম, বিদ্যুতের দাম, বাস ভাড়া কমাতে হবে। অন্যথায় বৃহত্তর কর্মসূচি দিয়ে সরকারকে বাধ্য করা হবে।

শনিবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন। করোনা মোকাবেলায় ব্যর্থ সরকারের পদত্যাগের দাবিতে এবং বাস ভাড়া ও ওয়াসার পানির মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে মানববন্ধনের আয়োজন করে নাগরিক ঐক্য।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘অবিলম্বে করোনা পরীক্ষার ফি বাতিল করতে হবে। জাতীয় সংসদে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বিবৃতি দিয়ে বাঁচতে পারবেন কিন্তু জনগণ থেকে কিভাবে বাঁচবেন। অনেক টাকা লুটপাট করেছেন। চিকিৎসকদের থাকা খাওয়াসহ ল্যাপটপ কেনার নামে। সব অন্যায়ের বিচার করা হবে। একজনও মাফ পাবেন না। করোনা পরীক্ষার ফি বাতিল করেন। তা যদি না হয় তাহলে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীসহ সব চিকিৎসক ও অন্য পেশাজীবীদের নিয়ে বৃহত্তর কর্মসূচি দেবো।’

আইসিটি অ্যাক্টের সমালোচনা করে মান্না বলেন, ‘মানুষের মুখ বন্ধ করার জন্য আপনারা আইন বানিয়েছেন। বাক স্বাধীনতা হরণ করতে চাইছেন। কিন্তু এই দেশের মানুষ আইয়ুবের শোষণ মানে নাই, দেশের বড় বড় স্বৈরাচার, একনায়কতন্ত্রী সরকার মানে নাই। মানুষ ক্ষোভে ফুসছে। যেকোন সময় বিষ্ফোরণ হবে।’

তিনি বলেন, ‘পাটকল শ্রমিকদের সঙ্গে গত কয়েকদিন ধরে সরকারের নাটক দেখলাম। যিনি নিজে পাটকল বন্ধ করলেন, তিনি নাকি আবার চোখের পানি ফেলছেন। কেউ দেখেছে সেই পানি ফেলতে? এইসব নাটক সিনেমা বাদ দেন।’

মান্না বলেন, ‘আমাদের প্রথম দাবি দেশের প্রতিটি মানুষের স্বাস্থ্যের নিরাপত্তা, কোনো মানুষ চাইলে করোনা পরীক্ষা করতে পারবে না, তাহলে এমন সরকারের দরকার নাই। যে সরকার গরিব অসহায়দের খাবার দিতে পারে না সেই সরকার ফকির সরকার। যে সরকার করোনা পরীক্ষার জন্য ২০০ টাকা চায়। তাহলে এইরকম গরিব, ফকির বেইমান সরকার বাংলাদেশ দরকার নাই।’

সকল রাজনৈতিক দল, পেশাজীবী সংগঠন এবং অন্যান্য সকল বিরোধী শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলনের হুশিয়ারি দিয়ে মান্না বলেন, ‘অচিরেই আমরা বৃহত্তর কর্মসূচি দিব। তার আগেই ভাল হয়ে যান। এখন আপনার অনেক পাইক পেয়াদা দেশ ছেড়ে পালাচ্ছে। সেদিন এয়ারপোর্ট পর্যন্ত যাওয়ার সুযোগ পাবেন না।’

মানববন্ধনে সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য দেন- জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাত, সাধারণ সম্পাদক সাদেক আহমেদ খান, গণফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোস্তাক আহমেদ। আরও উপস্থিত ছিলেন- নাগরিক ঐক্যের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শহীদুল্লাহ্ কায়সার, জিন্নুর চৌধুরী দিপু, সাকিব আনোয়ার প্রমুখ।