ফেসবুকের তথ্য সংগ্রহ করতে পারে দুর্বৃত্তরা

নিউজ ডেস্ক:   আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে যদি অন্য কোনো ওয়েবসাইট বা অ্যাপে সাইনইন করে থাকেন, তবে তা শিগগিরই কিছু সিকিউরিটি সেটিংস হালনাগাদ করে নেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। ফেসবুক সম্প্রতি স্বীকার করেছে যে বেশ কিছু অ্যাপ ফেসবুকের স্পর্শকাতর তথ্য হাতিয়ে নিচ্ছে। ৯০ দিন কোনো অ্যাপ ব্যবহার না করার ফলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে মুছে গেলে বা তা ব্যবহারকারী তা সরিয়ে দিলেও তা অগোচরে ফেসবুকের তথ্য সংগ্রহ করতে পারে। ফেসবুকের ব্লগ পোস্টে সম্প্রতি এ তথ্য জানানো হয়েছে। এ বিষয় নিয়ে এখন তাই সতর্ক থাকতে হবে।

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বলছে, বিশেষ নিরাপত্তাত্রুটি বা বাগের কারণে এ সমস্যা সৃষ্টি হয়েছিল। এ নিরাপত্তাত্রুটি কাজে লাগিয়ে সাইবার দুর্বৃত্তরা ফেসবুক থেকে তথ্য হাতিয়ে নিতে পারে। তবে ফেসবুক ওই নিরাপত্তাত্রুটি হালনাগাদ করে ফেলেছে। ফেসবুক দাবি করেছে, কোনো তথ্য বেহাত হয়নি।

সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে লগইন করা যায়—এমন অ্যাপ যদি ব্যবহারের প্রয়োজন না পড়ে, তবে তা দ্রুত সরিয়ে ফেলা উচিত। এতে নিরাপদে থাকা যাবে।

থার্ড পার্টি এসব অ্যাপ থেকে ফেসবুক সরাবেন যেভাবে

আইওএস বা অ্যান্ড্রয়েড থেকে ফেসবুক অ্যাপ চালু করুন বা ব্রাউজার থেকে ফেসবুক ডটকমে যান। সেখান থেকে সেটিংস মেনুতে গিয়ে ‘অ্যাপস অ্যান্ড ওয়েবসাইটস’ ক্লিক করুন। এতে নতুন একটি মেনু পাবেন। সেখানে ফেসবুক ব্যবহার করে সাইনইন করা সব থার্ড পার্টি অ্যাপ ও ওয়েবসাইটের তালিকা পাবেন। যেসব অ্যাপে আর ফেসবুকের সংযোগ চান না, সেটি সরিয়ে দিন। যদি কোনো অ্যাপের তালিকা না পান, তবে আপনি ফেসবুক ব্যবহার করে কোনো অ্যাপে লগইন করেননি। অথবা ফেসবুক আগেই তা সরিয়ে ফেলেছে।

ফেসবুক সাধারণত কোনো অ্যাপ ৯০ দিন ব্যবহার না করলে তা সরিয়ে ফেলে। মুছে দেওয়া অ্যাপে আগে সংগ্রহ করা তথ্য থেকে গেলেও নতুন করে আপনার ওপর নজরদারি করবে না। অ্যাপস অ্যান্ড ওয়েবসাইটস মেন থেকে অ্যাকাউন্টের ডিফল্ট ইন্টারঅ্যাকশন সম্পাদনা করাও সুবিধা পাবেন। এডিট বাটনটি থেকে অ্যাপস, ওয়েবসাইটস ও গেম প্যানেল চালু ও বন্ধ করার সুবিধাও পাওয়া যাবে। এটি বন্ধ করে দিলে অ্যাপস, ওয়েবসাইটস ও গেম সব বাইরের অ্যাপের সঙ্গে অ্যাকাউন্টের সংযোগ বন্ধ করে দেবে। এতে অন্য অ্যাপের বা সাইটের কনটেন্টের সঙ্গে ফেসবুকের যুক্ত হওয়ার সুবিধা কমে যাবে। তবে এতে আপনার কার্যক্রম অন্য কোনো সাইট নজরদারি রাখতে পারবে না।