বুড়িগঙ্গা সেতুতে আপাতত সীমিত যান চলবে

নিউজ ডেস্ক:    মঙ্গলবার রাত আটটার মধ্যে স্টিলের জাল বসানো সম্ভব হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন সড়ক ও জনপথ বিভাগের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী (ঢাকা অঞ্চল) সবুজ উদ্দিন খান।

তিনি বলেন, “ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে দেখা গেছে ব্রিজের বেশ ক্ষতি হয়েছে। বর্তমানে ওই অংশ দিয়ে চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ।

“প্রাথমিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত অংশটুকু স্টিলের নেট বসিয়ে আটকে রাখা হবে। এরপর ব্রিজের ওই অংশ বন্ধ করে পাশ দিয়ে সীমিত আকারে যান চলাচলের জন্য খুলে দেয়া হবে। ভারি মালামাল নিয়ে যানবাহন আগের মতো আর চলতে পারবেনা। মালামালের ওজন কমিয়ে চলাচলের সুযোগ পাবে। এ ব্যাপারটি মনিটর করা হবে।”

স্টিলের জাল সাময়িক ব্যবস্থা জানিয়ে প্রকৌশলী সবুজ বলেন, “বুধবার আরেকটি বিশেষজ্ঞ দল নীচ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত অংশ দেখে স্থায়ী মেরামতের ব্যাপারে পরামর্শ দেবেন।পরে সে অনুযায়ী আমরা কাজ করব।”

সোমবার সকালে বড় একটি লঞ্চের ধাক্কায় সদরঘাটের কাছে বুড়িগঙ্গায় মর্নিং বার্ড নামের একটি ছোট লঞ্চ ডুবে গেলে ৩২ জন মারা যান।

ডুবে যাওয়া লঞ্চটি উদ্ধারের জন্য ওইদিন দুপুরে নারায়ণগঞ্জ থেকে রওনা হয়েছিল উদ্ধারকারী জাহাজ ‘প্রত্যয়’। কিন্তু পানির উচ্চতা বাড়ায় বুড়িগঙ্গা সেতু অতিক্রম করার সময় সেতুর মাঝামাঝি গার্ডারে ধাক্কা লাগে জাহাজের। এতে সেতুর গার্ডারের ওই অংশে ফাটল তৈরি দেয়।

পরে রাত ৮টা থেকে ওই সেতুতে যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।

মঙ্গলবার সকালে সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পরে তারা বৈঠকে বসে সেতুতে সীমিতভাবে যান চালানোর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেন।