ইমামকে জুতার মালা পরানোর ঘটনায় চেয়ারম্যানসহ কারাগারে ২

নিউজ ডেস্ক: বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জে এক শিক্ষার্থীর উপবৃত্তির টাকা আত্মসাতের অভিযোগ তুলে একটি মাদ্রাসার অফিস সহকারী ও স্থানীয় একটি মসজিদের ইমামকে জুতা পেটা করে গলায় জুতার মালা পরানোর মামলায় গ্রেফতারকৃত ইউপি চেয়ারম্যান ও তার সহযোগীকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

শুক্রবার বেলা ১২টায় মেহেন্দিগঞ্জ থানা পুলিশ মামলায় প্রধান অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যান মো. মোস্তফা রাড়ি ও তার সহযোগী সাবেক মেম্বর সাত্তার সিকদারকে মেহেন্দিগঞ্জ আদালতে সোপর্দ করা হয়। আদালত তাদের দু’জনকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। এর আগে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. নাঈমুল হকের নেতৃত্বে গত বৃহস্পতিবার বিকেলে পার্শ্ববর্তী মুলাদী উপজেলা সদর থেকে গ্রেফতার করে তাদের। 

উল্লেখ্য, গত বুধবার মেহেন্দিগঞ্জের দড়িরচর খাজুরিয়া দাখিল মাদ্রাসার এক ছাত্রীর উপবৃত্তির ১ হাজার ৮শ’ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ তুলে ওই মাদ্রাসার অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর ও স্থানীয় একটি মসজিদের ইমাম মো. শহীদুল ইসলাম আলাউদ্দিনকে গত বুধবার বিকেলে ইউনিয়ন পরিষদে ডেকে নিয়ে প্রকাশে জুতা পেটা করেন ইউপি চেয়ারম্যান ও তার সহযোগীরা।

পরে তাকে জুতার মালা পরিয়ে ঘোরানোর পর পরিষদের একটি কক্ষে আটকে রাখা হয়। তাদেরই একজন এই ঘটনার ভিডিও ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেয়। রাতের মধ্যে ওই ভিডিও ভাইরাল হলে তোলপাড় হয়। পুলিশ এ ঘটনায় জড়িত বজলু আকন নামে একজনকে শুক্রবার সকালে আটক করে। শহীদুল ইসলাম বাদী হয়ে সকালে চেয়ারম্যান সহ ১১ জনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।