করোনার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ লড়াই করতে হবে: কাদের

নিউজ ডেস্ক:    সরকারের সমালোচনা করাকে রুটিনওয়ার্কে পরিণত না করতে বিএনপিসহ রাজনৈতিক দলগুলোর প্রতি আহবান জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, অভিন্ন শত্রু করোনার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই করতে হবে। অভিন্ন প্রাণঘাতী ঘটনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে কেউ দ্বিমত পোষণ করতে পারি না। এখন ঐক্যবদ্ধ থাকাই সংকট সমাধানের সবচেয়ে বড় শক্তি। এতে লড়াইয়ের ময়দানে থাকা যোদ্ধারা মনে শক্তি পাবেন।

বৃহস্পতিবার তার সংসদ ভবনের সরকারি বাসভবন থেকে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, দ্বিমত-বহুমত গণতান্ত্রিক সমাজের অলঙ্কার। বিভিন্ন ইস্যুতে রাজনৈতিক দলগুলোর ভিন্নমত থাকবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু জাতীয় দুর্যোগে সমালোচনা, অপপ্রচার ও বিভ্রান্তি না ছড়াতে বিএনপির প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। কারণ এ ধরনের অপপ্রচার ও বিভ্রান্তি করোনা সংক্রমণ তথা ভাইরাসকে প্রাণশক্তি জোগাচ্ছে।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহনগুলোকে পরিচালনা করার জন্য শ্রমিক ও মালিকদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, স্বাস্থ্যবিধির প্রতি উদাসীনতা করোনা সংকটকে আরো ঘনীভূত করতে পারে। কিছু কিছু গণপরিবহন অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে না বলে অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। সরকারি নির্দেশনা অমান্যকারী এসব পরিবহনের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নিতে বিআরটিএ, হাইওয়ে পুলিশ ও জেলা পুলিশ লাইনসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে অনুরোধ জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, কিছু কিছু হাসপাতালের বিরুদ্ধে করোনা রোগীদের উপেক্ষা করার অভিযোগ রয়েছে। এসব হাসপাতালকে এ বিষয়ে আরও মানবিক হতে হবে।

সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা ও প্রকৌশলীদের উদ্দেশ্যে সড়ক পরিবহন মন্ত্রী বলেন, সড়ক-মহাসড়ক নির্মাণ ও সংস্কারকাজে গুণগতমান বজায় রেখে সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করতে হবে।

জনগণের অর্থের সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। বর্ষা শুরুর আগে চলমান সড়ক সংস্কার কাজ শেষ করার পাশাপাশি বিভিন্ন প্রকল্পে কর্মরত শ্রমিকদের যথা সময়ে বেতন পরিশোধে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন তিনি।

এ সময় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব নজরুল ইসলাম এবং সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী কাজী শাহরিয়ার হোসেনসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও প্রকল্প পরিচালকরা উপস্থিত ছিলেন।