বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সদস্যদের ম্যুরাল উদ্বোধন

মো. নজরুল ইসলাম, ময়মনসিংহ : বিশ্বের দীর্ঘতম নদ ব্রহ্মপূত্র তীরে দেশের অন্যতম বৃহৎ ঐতিহ্যবাহী সার্কিট হাউজ মাঠটিকে আরো আধুনিক ও শৈল্পিক কারুকার্যের মাধ্যমে সৌন্দর্য্যবর্ধন করে ভ্রমন পিপাসুসহ পর্যটকদের কাছে দৃষ্টিনন্দন ও আকর্ষণীয় করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। সেই সাথে ব্রহ্মপূত্রের কোলঘেঁষে ঐতিহাসিক মাঠের পূর্বপাশে বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের শহীদ সদস্যদের ম্যুরাল স্থাপন এবং সার্কিট হাউস মাঠকে আরো সুরক্ষিত করতে চারদিকে ওয়াকওয়েসহ বাউন্ডারি দেয়াল নির্মাণ কাজের ভিত্তি নামফল উন্মোচন করা হয়েছে।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে ময়মনসিংহ বিভাগে এই প্রথম ১জুন রবিবার বিকেলে ‘১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট শহীদ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের শহীদ সদস্যদের ম্যুরাল স্থাপন এবং সার্কিট হাউজ মাঠের নান্দনিকতা বৃদ্ধি’র ভিত্তি নামফল উন্মোচন করেছেন বিদায়ী বিভাগীয় কমিশনার খোন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান এনডিসি ও নবাগত বিভাগীয় কমিশনার মোঃ কামরুল হাসান এনডিসি। এসময় দোয়া পরিচালনা করেন আঞ্জুমান ঈদগাহ মসজিদের খতিব মুফতি আব্দুল্লাহ আল মামুন। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নিলে আগামী বছর ২০২১ সালের ১৭ মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১ তম জন্মদিনে এটি উদ্বোধন হতে পারে।

ময়মনসিংহ গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ বদরুল আলম খান জানান, ময়মনসিংহ সার্কিট হাউজ মাঠ সংলগ্ন ২ কোটি টাকা ব্যয়ে শহীদ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের শহীদ সদস্যদের ম্যুরাল স্থাপন ও সাড়ে চার কোটি টাকা ব্যয়ে সার্কিট হাউজ মাঠের চারদিকে ১ হাজার ৩৯৯ মিটার দৈর্ঘ্যরে আড়াই ফুট উচুঁ দেয়াল ও তার উপর আড়াই ফুট উচু কারুকার্য সম্বলিত এস.এস পাইপের গ্রিল বসানো কাজের উদ্বোধন করা হয়। পাশাপাশি সৌন্দর্যময় দৃষ্টিনন্দন গ্লোব লাইটের মাধ্যমে আলোকসজ্জা সহ সাধারণ মানুষের হাঁটার জন্য ৬ফুট প্রশস্তের ওয়াকওয়ে নির্মাণ করা হবে।

৩ হাজার ৪১১ বর্গমিটার আয়তনের প্রায় ১৬ একর জমির উপর এই ঐতিহাসিক সার্কিট হাউজ মাঠটি অবস্থিত। এর তিন দিকে বড় বড় ৩টি গেইট ও মাঝারি ধরনের আরো ৫টি গেইট নির্মাণ করা হবে। আবুল মনসুর সড়কের র‌্যাব অফিসের পাশে প্রধান গেইটটি অত্যন্ত দৃষ্টিনন্দন করা হবে। দুটি ওয়াসব্লক নির্মাণ করা হবে, এতে পুরুষ ও মহিলাদের আলাদ সুব্যবস্থা থাকবে। দুটি গভীর নলকূপ বসানো হবে। এছাড়াও বিশুদ্ধ খাবার পানির ব্যবস্থা, সার্বক্ষণিক ইলেকট্রিক ওয়াটার পিউরিফায়ার বসানো হবে।

ম্যুরাল নির্মাণ কাজের ভিত্তি নামফলক উন্মোচনকালে জেলা প্রশাসক মোঃ মিজানুর রহমান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান, ময়মনসিংহ গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ বদরুল আলম খান, মহানগর আওয়ামীলীগ সভাপতি এহতেশামুল আলম, জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল, জেলা নাগরিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার নূরুল আমিন কালামসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন ।