স্বাস্থ্যবিধি মানাতে পরিচালনা হবে মোবাইল কোর্ট

নিউজ ডেস্ক:    করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে দীর্ঘ ৬৬ দিন বন্ধ থাকার পর রোববার শর্ত সাপেক্ষে খুলছে সরকারি-বেসরকারি অফিস। এ অবস্থায় করোনা প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীগুলোকে চিঠি দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। শনিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের রাজনৈতিক শাখা থেকে পুলিশের আইজি, বিজিবি, কোস্টগার্ড ও আনসারের মহাপরিচালককে এই চিঠি দেওয়া হয়।

চিঠিতে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার কথা বলা হয়েছে। এজন্য স্থানীয় প্রশাসনকে মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় সহায়তা দেওয়ার জন্য সব আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশনা দেওয়া হয়।

চিঠিতে বলা হয়, পুলিশ, বিজিবি, কোস্টগার্ডসহ জননিরাপত্তা বিভাগের আওতাধীন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রত্যেক সদস্যকে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের জারি করা করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্য ও বিধিসমূহ কঠোরভাবে প্রতিপালন করা এবং মোবাইল কোর্ট আইন-২০০৯ অনুযায়ী সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইন-২০১৮ অনুযায়ী মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তা দেওয়ার লক্ষ্যে নির্দেশনা দিতে নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।

চিঠিতে আরও বলা হয়, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব এবং ব্যাপক বিস্তার রোধে স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে সব পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে ১৩টি এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের আবাসিক স্থাপনায় সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি পালনের লক্ষ্যে দুটি নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ আগামী ৩১ মে থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত ১৫টি শর্তে সার্বিক কার্যাবলি/চলাচলের নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বর্ধিত করেছে। এ ছাড়া জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে শর্ত সাপেক্ষে দেশের সার্বিক কার্যাবলি ও জনসাধারণের চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ/সীমিতকরণ করা হয়েছে। কর্মকর্তা-কর্মচারীদের স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতকরণের জন্য সর্বাবস্থায় মাস্ক পরিধানসহ স্বাস্থ্যবিভাগ কর্তৃক জাররিকৃত ১৩ দফা নির্দেশনা কঠোরভাবে অনুসরণের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

চিঠিতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের উদ্দেশে বলা হয়, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের আবাসিক স্থাপনায় সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি পালনের লক্ষ্যে এক সদস্য অন্য সদস্য থেকে কমপক্ষে ৪-৬ ফুট দূরত্ব বজায় রাখা, সাবান-পানি দিয়ে ২০ সেকেন্ড হাত ধোয়া, প্রয়োজনে ৭০% এলকোহলযুক্ত হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার, মাস্ক পরাসহ অন্যান্য সাস্থ্যবিধি নিশ্চিতকরণের জন্য সাস্থ্য সেবা বিভাগ থেকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। করোনা প্রতিরোধে সরকার কর্তৃক জারিকৃত স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত নির্দেশনাসমূহ বাংলাদেশের প্রতিটি নাগরিকের জন্য বাধ্যতামূলক। সাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত সরকারি নির্দেশনা অনুসরণ না করা উক্ত আইনের অধীনে দণ্ডনীয় অপরাধ। এ অবস্থায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রত্যেক সদস্যকে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ কর্তৃক জারিকৃত কভিড-১৯ প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধিসমূহ কঠোরভাবে পালনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।