জামালপুরে পাঁচ চিকিৎসকসহ ৮ জনের করোনা শনাক্ত

নিউজ ডেস্ক:    জামালপুরে পাঁচজন চিকিৎসকসহ নতুন করে আরও আটজনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে জামালপুর শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে কমর্রত চারজন চিকিৎসক ও বকশীগঞ্জ উপজেলা হাসপতালের একজন চিকিৎসক রয়েছেন।

চিকিৎসক আক্রান্তের ঘটনায় আজ রোববার শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবের কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করে পুরো ল্যাবটি জীবাণুমুক্ত করার উদ্যোগ নিয়েছে ল্যাব কর্তৃপক্ষ।

শনিবার রাতে জামালপুর পিসিআর ল্যাব থেকে ওই আটজনের করোনার রিপোর্ট পজিটিভ বলে জানানো হয়। এ নিয়ে জেলায় এখন পর্যন্ত ১৭৯ জন করোনায় আক্রান্ত হলেন।

জেলার সিভিল সার্জন ডা. প্রণয় কান্তি দাস এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, জামালপুর পিসিআর ল্যাবের চারজন চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় পিসিআর ল্যাবের কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করে পুরো ল্যাবটি জীবাণুমুক্ত করার উদ্যোগ নিয়েছে ল্যাব কর্তৃপক্ষ। তবে ল্যাবটি বন্ধ থাকলেও রোববারের নমুনাগুলো পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহের পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হবে।

সূত্র জানায়, শনিবার জামালপুরের শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে ৯৩টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে আটজনের নমুনায় করোনা পজিটিভ আসে। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে জামালপুর সদর উপজেলায় পাঁচজনের করোনা পজিটিভ আসে। তারা হলেন- শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবের একজন নারী চিকিৎসকসহ চারজন চিকিৎসক, তাদের বয়স ৩২ থেকে ৪৬ বছরের মধ্যে। তাদের মধ্যে একজন জামালপুর সদর হাসপাতালের প্যাথলজি বিভাগ থেকে এবং বাকি তিনজন চিকিৎসক শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের প্রভাষকের পদ থেকে প্রেষণে পিসিআর ল্যাবে যোগদান করেন।

সদরের অপর একজন হলেন- শহরের শহীদ হারুন সড়কের এক যুবক (৩০)। এই যুবকের এক সহোদর জামালপুর পিসিআর ল্যাবের টেকনিশিয়ান হওয়ায় সংশ্লিষ্টরা ধারণা করছেন তার ভাইয়ের সংস্পর্শে আসার কারণেই তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ ছাড়া বকশীগঞ্জ উপজেলায় আক্রান্ত দুজনের মধ্যে- উপজেলা হাসপাতালের একজন চিকিৎসক (৩২) এবং একই উপজেলার দক্ষিণ কামালপুর গ্রামে ঢাকাফেরত একজন নারী (৪৫) রয়েছেন।

দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার বাহাদুরাবাদ ইউনিয়নে মুন্সীগঞ্জফেরত একজন ধানাকাটা শ্রমিকের (২৫) করোনা পজিটিভ আসে। মুন্সীগঞ্জ থেকে এলাকায় ফেরার পর ১২ জন ধানকাটা শ্রমিককে বাহাদুরাবাদ ইউনিয়নের শাহজাদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কোয়ারেন্টিনে রেখে প্রত্যেকের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। তাদের মধ্যে একজন শ্রমিকের করোনা পজিটিভ আসে।

জামালপুরের সিভিল সার্জন ডা. প্রণয় কান্তি দাস জানান, নতুন করে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হওয়া আটজনের মধ্যে সাতজনের আইসোলেশনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। বাকি একজন বকশীগঞ্জ উপজেলার ওই নারীকে আজ সকালে আইসোলেশনে আনা হবে। একই সঙ্গে তাদের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের নমুনা সংগ্রহ করা হবে।

ল্যাব বন্ধ থাকলেও রোববার সকালে শতাধিক নমুনা ময়মনসিংহের পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হচ্ছে এবং আজকে রাতের মধ্যেই নমুনা পরীক্ষার ফলাফল সেখান থেকে পাঠানো হবে বলেও জানান ডা. প্রণয় কান্তি দাস।