রুশ বিজ্ঞানীর দাবি করোনা মানবসৃষ্ট, জন্ম চীনের ল্যাবে

সুমন দত্ত: করোনা ভাইরাসের জন্ম কথা নিয়ে হাটে হাড়ি ভাঙ্গলো এক শীর্ষ রাশিয়ান মাইক্রোবায়োলজিস্ট। তার নাম পীতর চুমাকোভ। অভিজ্ঞ এই রাশিয়ান বিজ্ঞানীর মতে উহানের গবেষণাগারেই করোনা ভাইরাস তৈরি করা হয়। মানবদেহকে নিশানা করেই করোনাভাইরাসে পরিবর্তন আনা হয়। যা ছিল চীনা বিজ্ঞানীদের এক ধরনের পাগলামি। তাতে কোনো অসৎ উদ্দেশ্য ছিল না। এমনটাই দাবি করেছেন তিনি।

চুমাকোভ সম্প্রতি রাশিয়ান দৈনিক মস্কোভসি কমসোমোলেট পত্রিকায় এ নিয়ে সাক্ষাৎকার দেন। সেখানে তিনি বলেন, গত ১০ বছরেরও বেশি সময় ধরে চীনের এক দল গবেষক করোনা ভাইরাসের বিভিন্ন ভ্যারিয়েন্টের সংস্করণ নিয়ে গবেষণা করেন। তবে এসব কর্মকাণ্ড পরিচালিত হয় এইচআইভি ভাইরাসের ভ্যাকসিন তৈরি করার নামে। তারা করোনা ভাইরাসের ভিতর বেশকিছু সাবসটিটিউশন ঢোকান। এতে করোনা ভাইরাসের মধ্যে বিশেষ ধর্মের সৃষ্টি হয়। সবচেয়ে মজার বিষয় তাদের এই গবেষণায় চীন ও আমেরিকার  বিজ্ঞানীরা কাজ করেছিল। আর তদের কাজের যাবতীয় তথ্য সাইন্টিফিক প্রেসে প্রকাশ হয়েছিল।

প্রসঙ্গত , এর আগে ফ্রান্সের একজন নোবেল বিজয়ী বিজ্ঞানী লুক মন্টেগনার জোর দাবি করেন করোনা ভাইরাস গবেষণাগারে তৈরি। তিনিও রাশিয়ার বিজ্ঞানীর মতো বলেছেন এইডসের ভ্যাকসিন তৈরি করতে গিয়ে এই ভাইরাস তৈরি হয়ে যায়। করোনা ভাইরাসের মধ্যে এইডসের জিনোম সিকুয়েন্স আর ম্যালেরিয়ার জীবাণু নানা প্রশ্নের অবতারণা করে। তিনি বলেন, ২০০০ সাল থেকে উহানের গবেষণাগারে করোনা ভাইরাস নিয়ে নানামুখী গবেষণা চলছিল।

ঢাকানিউজ২৪ডটকম