পার্বতীপুরের ৫ স্থানে ত্রাণের দাবিতে সড়ক অবরোধ

নিউজ ডেস্ক:   দিনাজপুরের পার্বতীপুরে পথে পথে সড়ক অবরোধ করেছে ত্রাণ না পাওয়া বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় পার্বতীপুর-ফুলবাড়ী সড়কের ৫ স্থানে অবরোধ শুরু করে গ্রামবাসী। তারা রাস্তায় কাঠের গুড়ি ফেলে লাঠি হাতে অবস্থান নেয়। এতে ৩ ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে।

পরে উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও পুলিশ ঘটনাস্থলগুলোতে পৌছে বিধি অনুযায়ী ত্রাণ বিতরণের আশ্বাস দিলে দুপুর ১টার দিকে অবোরোধ তুলে নেয় গ্রামবাসী।

হাবড়া নতুন হাট বাজারের কহিনুর বেগম জানান, তিনি এখন পর্যন্ত সরকারি কোন ত্রাণ পাননি।

অবোরোধকারী পশ্চিম শেরপুর বনের ডাঙ্গা গ্রামের আবু সায়েম বলেন, অনেকেই ত্রাণ পাচ্ছে, কিন্তু আমাকে কোন ত্রাণ দেওয়া হচ্ছে না। ১০টাকা কেজি দরের ৩০ কেজি চাল পাওয়ায় তাকে ত্রাণ দেওয়া হয়নি। এ কারণে তিনি তার গ্রামের লোকজনের সঙ্গে সড়ক অররোধে এসেছেন।

জানা গেছে, উপজেলার হাবড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান সম্প্রতি তার ৯টি ইউনিয়নের দরিদ্র মানুষের মধ্যে সরকারি ত্রাণ বিতরণ করেন। এতে অনেক দরিদ্র নারী পুরুষ বাদ পড়ে যায়। ত্রাণ না পাওয়া ২ নং ও ৩ নং ওয়ার্ডের নারী পুরুষরা ভবানীপুর বাজার, তেলী পাড়া, শেরপুর, তেলীপাড়া মসজিদ মোড় ও হাটবাজারে অবরোধ সৃষ্টি করে। এতে কয়েক শত নারী-পুরুষ অংশ নেয়।

৩নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুল হামিদ বলেন, তার ওয়ার্ডে ভোটা সংখ্যা ৪হাজারের মতো। তিনি ১৩০ জনের মাঝে চাল বিতরণ করেছেন। কোন অনিয়ম হয়নি। কিন্তু যারা সুবিধাভোগী বিভিন্ন ভাতা ও ১০টাকা কেজির চাল পান তারা ত্রাণের জন্য আন্দোলন শুরু করেছেন।

ইউপি চেয়ারম্যান আনিসুজ্জামান সরকার বলেন, সরকারি ত্রাণ বিতরণে বিন্দুমাত্র ত্রুটি করা হয়নি। প্রথম দিকে আড়াই টন চাল ১০ কেজি করে বিতরণ করা হয়েছে। এর পর উপজেলা প্রশাসনের ত্রাণ প্যাকেট প্রতি ওয়ার্ডে ২৮ জনকে দেওয়া হয়েছে। সরকারি নির্দেশ অনুযায়ী কোন সুবিধাভোগী পরিবারকে ত্রাণ সহায়তা দেওয়ার নির্দেশ নেই। কিন্তু কিছু মানুষ আছে যারা সরকারের কর্মকাণ্ডকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চায়, তারা রাস্তা অবরোধে নেমেছেন।

পার্বতীপুর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবু তাহের মোঃ সামসুজ্জামান বলেন, ত্রাণের দাবিতে হাবড়া ইউনিয়নে ৫টি পয়েন্টে অবরোধ করে গ্রামবাসী। তাদের সঙ্গে কথা বলে বিধি অনুযায়ী ত্রাণের আশ্বাস দেওয়ায় তারা অবরোধ তুলে নেয়।