বিদেশে আটকেপড়াদের ফিরিয়ে আনতে সরকার দৃঢ় প্রতিজ্ঞ

নিউজ ডেস্ক:  পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ভারতসহ অন্যান্য দেশে আটকেপড়া বাংলাদেশীদের দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে সরকার দৃঢ় প্রতিজ্ঞ।

আজ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ এর ব্যাপক প্রসারের প্রেক্ষিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রবাসী বাংলাদেশীদের কল্যাণে সজাগ দৃষ্টি রাখছে।

এতে জানানো হয়, নয়াদিল্লীতে বাংলাদেশ হাইকমিশনের সর্বশেষ তথ্যমতে এ মুহূর্তে বিভিন্ন কারণে ভারতে গিয়ে আটকে পড়া বাংলাদেশীর সংখ্যা প্রায় দুই হাজার পাঁচশত। এদের মধ্যে এক হাজারের বেশি ছাত্র-ছাত্রী রয়েছে।
এতে বলা হয়, কোভিড-১৯ এর ব্যাপ্তি রোধকল্পে ভারত সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী, কোন ধরণের বিদেশী (প্রবাসী ভারতীয়সহ) ১৪ এপ্রিল ২০২০ পর্যন্ত ভারতে প্রবেশ করতে পারবে না। তারা একই সঙ্গে ভারত থেকেও কোন বিদেশী নাগরিকের বহির্গমন নিরুৎসাহিত করছে। তাছাড়া ভারতের আন্ত:রাষ্ট্রীয় যোগাযোগ ব্যবস্থাও এ মুহূর্তে বন্ধ রয়েছে।

এ অবস্থার প্রেক্ষিতে, নয়াদিল্লিস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশনসহ ভারতে অবস্থিত বাংলাদেশের মিশনসমূহ বাংলাদেশীদের কল্যাণে সর্বদা সজাগ দৃষ্টি রাখছে। মিশনের কর্মকর্তারা আটকেপড়া দুই হাজার পাঁচশত জন বাংলাদেশীর সঙ্গে বিভিন্নভাবে টেলিফোন ও হটলাইনসহ বিভিন্ন মাধ্যমে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছে।

আটকেপড়া প্রবাসী বাংলাদেশীরা আর্থিক বা অন্য কোন সমস্যার সম্মুখীন হলে, হাইকমিশন ও অন্যান্য মিশনসমূহ তা সমাধানে সচেষ্ট আছে। পরিবেশ ও পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে সরকার ভারতসহ অন্যান্য দেশে আটকেপড়া বাংলাদেশীদের দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে উদ্যোগ গ্রহণ করবে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের বিপুল সংখ্যক নাগরিক প্রতিবছর বিভিন্ন কারণে (চিকিৎসা, পর্যটন, শিক্ষা প্রভৃতি) ভারত গমন করে।

গত ২৫ মার্চ থেকে ২১ দিন অর্থাৎ ১৪ এপ্রিল ২০২০ পর্যন্ত ভারত থেকে সব ধরনের যানবাহন (বাস, রেল, বিমান) চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে।