তিতাসের প্রিপেইড গ্রাহকদের জন্য ২০০০ টাকা ইমার্জেন্সি ব্যালান্স

নিউজ ডেস্ক:    তিতাস গ্যাসের আবাসিক প্রিপেইড গ্রাহকদের ইমার্জেন্সি ব্যালান্স ২০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে দুই হাজার টাকা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার তিতাস গ্যাসের এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকারের ‘ঘরে থাকার কর্মসূচি’ পালন আর সহজ হবে বলে মনে করছে সংস্থাটি। এই সুবিধার কারণে গ্রাহককে মিটার রিচার্জ করতে বাইরে বের হতে হবে না।

তিতাস গ্যাসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) আলী মোহাম্মদ আল মামুন বলেন, আগে আবাসিকের প্রিপেইড গ্রাহকরা ২০০ টাকা পর্যন্ত ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স ব্যবহার করতে পারতেন। এই সেবা ২০০০ টাকায় উন্নীত করায় একজন গ্রাহক যিনি গড়ে প্রতি মাসে ৫০০ টাকার গ্যাস ব্যবহার করেন, তার চার মাস চলবে। এ সময় কোন রিচার্জ করতে হবে না। করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে সরকারি ছুটিকালীন সবাই ঘরে থাকার সুবির্ধার্থে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, এর আগে এক সরকারি আদেশে আবাসিকে পাইপ লাইনের গ্রাহকদেরও ফেব্রুয়ারি থেকে মে মাসের বিল কোন প্রকার বিলম্ব মাশুল ছাড়াই আগামী জুন মাসের সুবিধাজনক সময়ে পরিশোধ করার সুযোগ দেওয়া হয়েছে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সরকার ২৬ মার্চ থেকে আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত দেশে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে। এর প্রেক্ষিতে তিতাস গ্যাস প্রিপ্রেইড গ্যাস মিটার রিচার্জ ও জরুরি সেবা শীর্ষক বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানায়, যেকোনো জরুরি সেবার জন্য সার্বক্ষণিক চারটি টিম প্রস্তুত থাকবে। এছাড়া ২৪ ঘণ্টার হটলাইন নম্বরগুলো বহাল থাকবে। কার্ড হারানোর ক্ষেত্রে সংস্থাটির প্রধান কার্যালয়ে মো. আবুল কালাম আজাদের (০১৭৩৯৯৮৯৮৬১ ও ০১৬২০০১০৯৬৯) সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে। বিশেষ ক্ষেত্রে প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী মো. ফয়জার রহমান (০১৯৩৯৯২১০৪৬), ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী মো. সাজ্জাদ হোসেন (০১৯৩৯৯২১০৭২) ও উপ-ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী মীর মোবারক হোসেনের (০১৯৫২২৭৭৩৭৯) সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন গ্রাহকেরা।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ছুটিকালীন সময়ে ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের উত্তরা শাখা (জসিমউদ্দিন মোড়) ও বসুন্ধরা শাখা এবং ইউ ক্যাশের নির্দিষ্ট এজেন্টদের মাধ্যমে মিটার কার্ড রিচার্জ করা যাবে। প্রয়োজনে তিতাস গ্যাসের কল সেন্টারের ১৬৪৯৬ নম্বরে কল করে সহায়তা নেওয়া যাবে।