অধ্যাপক বোরহান উদ্দিন খান জাহাঙ্গীরের ইন্তেকাল

নিউজ ডেস্ক :    বিশিষ্ট লেখক ও ভাষাসৈনিক অধ্যাপক বোরহানউদ্দিন খান জাহাঙ্গীর ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া …..  ইলাহি রাজিউন)। তাঁর বয়স হযেছিল ৮৪ বছর।

তিনি আজ গুলশানের বাসভবনে ইন্তেকাল করেন। গত এক বছর তিনি বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন অসুখে শয্যাশায়ী ছিলেন। আজই তাকে চাঁদপুরের কচুয়ায় মরহুমের গ্রামের বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে এবং সেখানে পারিবারিক গোরস্থানে তাঁকে সমাহিত করা হবে।

বোরহানউদ্দিন খান জাহাঙ্গীর এক সস্তান রেখে গেছেন। বোরহানউদ্দিন খান ছিলেন একজন শিক্ষক, গবেষক, রাজনৈতিক ও সর্বোপরি সাংস্কৃতিক আন্দোলনের একনিষ্ঠ নিবেদিতপ্রাণ কর্মী। তিনি ১৯৩৬ সালের ৯ জানুয়ারি চাঁদপুরের কচুয়া থানার গুলবাহার গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবার নাম আশেক আলী খান এবং মায়ের নাম সুলতানা বেগম। তিনি ১৯৫০ সালে ঢাকা সরকারি মুসলিম হাইস্কুল থেকে মাধ্যমিক এবং ১৯৫২ সালে ঢাকা কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন। তিনি পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয়ে ১৯৫৫ সালে স্নাতক এবং ১৯৫৬ সালে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। সত্তরের দশকে তিনি উচ্চশিক্ষার জন্য ইংল্যান্ড যান এবং সেখানে ডারহাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৭৪ সালে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন।

তিনি একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির উপদেষ্টা হিসেবে মৌলবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী নাগরিক আন্দোলনে অসামান্য অবদান রেখেছেন। তিনি ১৯৯২ সালে শহীদ জননী জাহানারা ইমামের নেতৃত্বে যুদ্ধাপরাধী গোলাম আযমের প্রতীকী বিচারের জন্য গঠিত গণআদালতের অন্যতম অভিযোগকারী ছিলেন।

তিনি সাবেক মন্ত্রী ড. মহিউদ্দীন খান আলমগীরের বড় ভাই।