ভারতে বন্ধ হতে পারে ফেসবুক ও টুইটার

নিউজ ডেস্ক:   হঠাৎ করেই স্যোশাল মিডিয়া ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সোমবার তিনি টুইটারে জানান, এক সপ্তাহে তিনি টুইটার, ইনস্টাগ্রাম এবং ইউটিউব অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়ার কথা ভেবেছিলেন। তার এই টুইটের পর থেকেই নানা জল্পনা শুরু হয়েছে।

কংগ্রেস নেতা শশী থারুর বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী মোদির এই টুইট সবাইকে চিন্তিত করেছে। কারণ এটি ভারতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম নিষিদ্ধ করার প্রস্তাবনা হতে পারে।

টুইটারে তিনি বলেন, নরেন্দ্র মোদি ভালো করেই জানেন, সোশ্যাল মিডিয়াও ভাল এবং ইতিবাচক। দরকারি বার্তা পাঠানোর জন্য এটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হতে পারে। এটি ঘৃণা ছড়িয়ে দেওয়ার মত কথা নয়।

স্বদেশি জাগরণ মঞ্চের অশ্বিনী মহাজনের টুইট করেছেন, কখনও এভাবে ছেড়ে দেবেন না। বরং টুইটার, হোয়াটসঅ্যাপ, ফেসবুক, ইনস্টাগ্রামের দেশি সংস্করণ তৈরিতে সহায়তা করুন।

প্রধানমন্ত্রী মোদির সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচুর ফলোয়ার্স রয়েছেন, ট্যুইটারে তার ফলোয়ার সংখ্যা ৫৩ দশমিক ৩ মিলিয়ন, ফেসবুকে ৪৪ মিলিয়ন এবং ইনস্টাগ্রামে ৩৫ দশমিক ২ মিলিয়ন ফলোয়ার রয়েছেন তার।