ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে মুশফিকের নতুন রেকর্ড

নিউজ ডেস্ক:  ক্রিকেটের অভিজাত সংস্করণ টেস্ট ম্যাচগুলোতে বাংলাদেশের অন্যতম ধারাবাহিক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহীম। তার ব্যাটের ওপর নির্ভর করে অনেক সময় তৈরি হয় জয়-পরাজয়ের গল্প। ভারতের বিপক্ষে দুই টেস্টে তিনি একাই লড়েছিলেন। দুটোতেই হাফসেঞ্চুরি করেছেন। এবার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ঘরের মাঠে একমাত্র টেস্টের প্রথম ইনিংসে ডাবল সেঞ্চুরি করলেন ‘মি. ডিপেন্ডেবল’ খ্যাত এই ক্রিকেটার। একমাত্র বাংলাদেশি হিসেবে মোট ৩টি ডাবল সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়েছেন এই টাইগার।

১০ ইনিংস পর নিজের সেঞ্চুরি খরা কাটালেন মুশফিক। এর আগে এই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই ক্যারিয়ার সেরা ডাবল সেঞ্চুরির ইনিংস খেলেছিলেন মুশফিক। সোমবার মিরপুরে মোট ৩১৫ বলে ৪৩৪ মিনিটে ২৮টি চারের মারে মুশফিক ডাবল সেঞ্চুরি করেন।

বাংলাদেশও এই টেস্টের আগে ১০ ইনিংসে সেঞ্চুরি খরায় ভুগছিল। ২০০ করার আগে একই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে ক্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরি হাঁকান মুশফিক।

ম্যাচে মুশফিকের ৯৯ রানের মাথায় মধ্যাহ্ন বিরতিতে যায় দুদল। বিরতি থেকে ফেরার পর দ্বিতীয় ওভারে এনডলবুকে চার হাঁকিয়ে সেঞ্চুরির মাইলফলক অর্জন করেন।

নার্ভাস ৯৯’এ মুশফিককে চাপে ফেলতে জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক দুজন বাদে সবাইকে নিয়ে আসেন বৃত্তের ভেতরে। ৯৫ থেকে ৯৯ রানে তিনি এসেছিলেন চার মেরে, ১০০ রানের ঘর ছুঁতে ৯ বল খেলেন মুশফিক। ১৬০ বলে ২৩০ মিনিটে ১৮টি চারের মারে ১০০ রান করেন বাংলাদেশের এই ব্যাটিং স্তম্ভ।

১৫০ রানও পূর্ণ করেন চার মেরে। ২৫৪ বলে নাইউচিকে চার মেরে দেড়শ রানের খাতা পূরণ করেন। পরে মাত্র ৬১ বল খেলে পৌঁছে যান ম্যাজিক ফিগার ২০০ রানে।

এর আগে তার সর্বোচ্চ ইনিংসটি ছিল এই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই। ২০১৮ সালে এই মাঠেই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলে ২১৯ রান করেছিলেন। এটি এখন পর্যন্ত টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের কোনো ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ স্কোর। মুশফিক প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি করে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। এ ছাড়া টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৪০৮ রান এই ডানহাতি ব্যাটসম্যানের। তার পরেই ৪৪০৫ রান নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে আছেন তামিম ইকবাল।