গোপালগঞ্জে উপমহাদেশের সবচেয়ে বড় সরস্বতী প্রতিমা

নিউজ ডেস্ক:    সনাতন ধর্মালম্বীদের কাছে বিদ্যা, জ্ঞান, বাণী ও সুরের দেবী সরস্বতী। প্রতিবছর গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং সনাতন ধর্মালম্বীদের বাড়ি বাড়ি ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও আনন্দমুখর পরিবেশের মধ্যে দিয়ে সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলার কান্দি ইউনিয়নের আমবাড়ী গ্রামের শ্রী শ্রী রাধাগবিন্দ ও গনেশ পাগল সেবাশ্রম ৫৫ ফুট উচ্চতার প্রতিমায় সরস্বতী পূজার আয়োজন করেছে। আয়োজকদের দাবি, এটিই হচ্ছে এ উপমহাদেশের সর্ববৃহৎ প্রতিমায় সরস্বতী প্রতিমা। প্রতিমাটি তৈরি করেছেন শ্রীবাস গাইন (পাল)।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় আমবাড়ী গ্রামের সার্বজনীন শ্রী শ্রী রাধাগোবিন্দ ও গণেশ পাগল সেবাশ্রম চত্বরে নির্মিত ৫৫ ফুট উচ্চতার এই সরস্বতী প্রতিমায় পূজা অনুষ্ঠিত হয়।

প্রতিমা দেখার জন্য আমবাড়ী গ্রামের আশপাশের এলাকা থেকে বিভিন্ন লোক এসে জড়ো হয়েছে পূজা-স্থলে। এছাড়াও বরিশাল, পিরোজপুর ও বিভিন্ন জেলা উপজেলার আত্মীয়-স্বজন এসেছে এ গ্রামে পূজা দেখার জন্য।

পূজাকে কেন্দ্র করে বসেছে তিনদিন ব্যাপী গ্রামীণ মেলা। আয়োজন করা হয়েছে ধর্মীয় যাত্রাপালা ও কবি গানের।

পাল শ্রীবাস গাইন বলেন, ১০ সহকারীকে নিয়ে এক মাস ধরে এ প্রতিমাটি নির্মাণ করেছি। আমি এর আগে ৪৫ ফুট উচ্চতার প্রতিমা তৈরি করেছি। ৫৫ ফুট উচ্চতার প্রতিমা এটাই প্রথম।

পুরোহিত গোলক চন্দ্র গাইন বলেন, আমি ৩০ বছর ধরে পূজা করি। কিন্তু এতো বড় প্রতিমায় কোন দিন পূজা করিনি। আমার আজকে অনেক স্থানে পূজা করার কথা ছিল, কিন্তু সব বাদ দিয়ে এখানে পূজা করতে এসেছি। এতো বড় প্রতিমায় পূজা করতে পেরে আমি নিজেকে ধন্য মনে করছি।

পূজা কমিটির সভাপতি বিশ্বপদ মণ্ডল বলেন, আমরা এলাকার যুবকরা মিলে এই পূজার আয়োজন করেছি। গত বছর আমরা ৪৫ ফুট উচ্চতার প্রতিমায় সরস্বতী পূজার আয়োজন করেছিলাম। এ বছর ৫৫ ফুট উচ্চতার সরস্বতী প্রতিমায় পূজার আয়োজন করেছি। আমাদের এই পূজায় ৩ লক্ষাধিক টাকা খরচ হবে। আমরা এ ধরনের পূজার আয়োজন করতে পেরে খুবই আনন্দিত।