নির্বাচন পেছানোর দাবিতে অনশনে ঢাবি শিক্ষার্থীরা

৩০ জানুয়ারি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সরস্বতী পূজার দিনে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণার পর নানা কর্মসূচি পালন করে আসছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। স্মারকলিপি প্রদান, বিক্ষোভ কর্মসূচি, শাহবাগ অবরোধ, নির্বাচন কমিশন অভিমুখে পদযাত্রার পর এবার আমরণ অনশনে বসেছেন তারা।

বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে তারা এই কর্মসূচি শুরু করেন। দাবি না মানা পর্যন্ত কর্মসূচি পালনের ঘোষণাও দেয়া হয় রাজু ভাস্কর্য থেকে।

এর আগে গত দুইদিন শাহবাগ মোড়ে অবস্থান নিয়ে অবরোধ কর্মসূচি পালন করেন তারা। বুধবার নির্বাচন কমিশন ভবন ঘেরাও কর্মসূচি পালনকালে শাহবাগে পুলিশি বাধার সম্মুখিন হন তারা। পরে কয়েক ঘণ্টা সড়ক অবরোধ করে রাখেন তারা। এরই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে আমরণ অনশনে বসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলনে নেতৃত্বদানকারী জগন্নাথ হল ছাত্র সংসদের ভিপি উৎপল দাস বলেন, সরস্বতী পূজার দিনে নির্বাচন দিয়ে এক ধরনের বৈষম্য তৈরি করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশনারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, আপনি বলেছেন পূজা নাকি হবে ২৯ তারিখ, নির্বাচন হবে ৩০ তারিখ। আমরা বলতে চাই পূজা ২৯ তারখি শুরু হলেও এর মূল আনষ্ঠানিকতা ৩০ তারিখ। তাই আমরা আপনাকে বলতে চাই, আপনি শিক্ষিত হতে পারেন, কিন্তু আপনার ন্যূনতম বিবেকবোধ নেই। নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তন না করা হলে ধরে নেবো এদেশে ধর্মের কোনও স্বাধীনতা নেই। আর যে দেশে ধর্মের স্বাধীনতা নেই, সে দেশ অসাম্প্রদায়িক নয় বলে আমরা মনে করি।

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করেছেন ডাকসুর সদস্য রাইসা নাসের, মাহমুদুল হাসান, ছাত্রলীগের বিভিন্ন হলের নেতৃবৃন্দসহ অনেকে।

চিফ রিপোর্টার, সাইফ শোভন, ঢাকানিউজ২৪.কম