ভাষা সৈনিক ও বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ট সহচর আহমেদ আলী আর নেই

বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ, ভাষা সৈনিক, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক এবং বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ট সহচর অ্যাডভোকেট আহমেদ আলী আর নেই। প্রোস্টেট ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে তিনি রাজধানীর অ্যাপোলো হসপিটালে শুক্রবার দিবাগত রাত ১.৪৭ মিনিটে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহে …. রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৭ বছর। তিনি পাঁচ মেয়ে এবং চার ছেলেসহ অসংখ্য আত্মীয় ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

স্বাধীনতা উত্তর কুমিল্লা জেলার প্রথম প্রশাসক অ্যাডভোকেট আহমেদ আলীর ছোট মেয়ে আইরিন আহমেদ জানান, আহমেদ আলীর প্রথম নামাজে জানাজা শনিবার সকাল ১০টায় তার গ্রামের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলার কাজলিয়া গ্রামে অনুষ্ঠিত হয়। পরে বাদ আছর কুমিল্লা টাউন হল মাঠে মরহুমের দ্বিতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠত হয়। মরহুমের জানাজায় সাবেক রেলপথমন্ত্রী ও কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মুজিবুল হক এমপি, আদর্শ সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাড. আমিনুল ইসলাম টুটুল, কুমিল্লা জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক মো. ওমর ফারুক, আওয়ামী লীগ নেতা সাজ্জাদ হোসেন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার শফিউল আহমেদ বাবুল এবং জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কায়জার মো. ফারাবী, বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও নানা শ্রেণিপেশার নেতৃবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন। জানাজা শেষে তাঁকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা দিয়ে কুমিল্লা নগরীর রেইসকোর্স কবরস্থানে দাফন করা হয়।

মরহুম আহমেদ আলী ১৯৭০ সালে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের গণপরিষদ নির্বাচনে বৃহত্তর কুমিল্লা-৫ আসনের (বর্তমানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫) এমএলএ নির্বাচিত হন। যা ১৯৭১ সালে মেম্বার অব কনস্টিটিউশন অ্যাডমিনিস্ট্রেটরে (এমসিএ) রূপান্তরিত হয়। কুমিল্লার প্রথম প্রশাসক আহমেদ আলী নেতৃত্ব দিয়েছেন ভাষা আন্দোলনে। বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ এ সহচর ১৯৫৩ সালে কুমিল্লা জেলা ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন। তিনি কুমিল্লা জেলা বার কাউন্সিলের প্রথম নির্বাচিত চেয়ারম্যান এবং ঢাকা বার কাউন্সিলের প্রথম নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন।

এদিকে ১৯৭১ সালের ৮ ডিসেম্বর কুমিল্লা মুক্ত দিবসে তিনি নগরীর টাউন হল মাঠে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন।

বর্ষীয়ান এ রাজনীতিবিদ ১৯৩২ সালের ১লা মার্চ তৎকালীন বৃহত্তর কুমিল্লার বর্তমান ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলার কাজলিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি এলএলবি ডিগ্রি অর্জন করেছিলেন। ‘আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠার ইতিকথা’সহ তিনি বেশ কয়েকটি বই লিখেছেন।

চিফ রিপোর্টার, সাইফ শোভন, ঢাকানিউজ২৪.কম