চারটি মার্কিন দূতাবাসে হামলার পরিকল্পনা ছিল ইরানের: ট্রাম্প

নিউজ ডেস্ক:   ইরানের ইসলামিক রেভল্যুশনারি গার্ডের কুদস ফোর্সের কমান্ডার কাসেম সোলাইমানিকে যখন ড্রোন হামলা চালিয়ে হত্যা করা হয়, সেই সময় ইরান চারটি মার্কিন দূতাবাসে হামলার পরিকল্পনার করছিল বলে দাবি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

কী ধরনের হুমকির প্রেক্ষাপটে গত শুক্রবার ড্রোন হামলা চালিয়ে কাসেম সোলাইমানিকে হত্যা করা হয়েছিল- এমন প্রশ্নের জবাবে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, ‘আমি এটা প্রকাশ করতে পারি যে, আমি বিশ্বাস করি তারা সম্ভবত চারটি দূতাবাসে হামলার পরিকল্পনা করেছিল।’

একই ধরনের বক্তব্য এসেছে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর কাছ থেকেও। তিনি বলেন, ‘শিগগিরই হামলা হতে পারে- এমন সুনির্দিষ্ট তথ্য আমাদের কাছে ছিল, যেসব হামলার লক্ষ্যবস্তুতে মার্কিন দূতাবাসগুলোও ছিল।’

মার্কিন ড্রোন হামলায় জেনারেল কাসেম সোলাইমানি নিহত হওয়ার পর প্রতিশোধ হিসেবে গত মঙ্গলবার স্থানীয় সময় গভীর রাতে ইরাকে দুটি মার্কিন ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। ওই হামলা অন্তত ৮০ জন মার্কিনি নিহত হয়েছে বলে ইরান দাবি করলেও ডোনাল্ড ট্রাম্প বুধবার জাতির উদ্দেশে দেওয়া এক ভাষণে জানান, হামলায় যুক্তরাষ্ট্রের কেউ হতাহত হয়নি এবং ক্ষয়ক্ষতিও হয়েছে খুব সামান্য।

এরপর বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসে ট্রাম্প প্রথমবারের মতো ধারণা দেন যে, ইরান চারটি মার্কিন দূতাবাসে হামলা করার পরিকল্পনা করেছিল। পরে সেই রাতেই ওহাইওতে এক সমাবেশেও তিনি একই দাবির পুনরাবৃত্তি করেন।