গোলাম দস্তগীর মেমোরিয়াল ব্রিজ চ্যাম্পিয়নশীপ পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত

নিউজ ডেস্ক:   রিটায়ার্ড আর্মড ফোর্সেস অফিসার্স ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন (রাওয়া), মহাখালী, ঢাকা-এর উদ্যোগে তিনদিন (২৫-২৭) ব্যাপী মেজর জেনারেল কাজী গোলাম দস্তগীর মেমোরিয়াল ডুব্লিকেট ব্রিজ চ্যাম্পিয়নশীপ-২০১৯ এর পুরস্কার বিতরণী  অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মেজর খন্দকার নূরুল আফসার (অবঃ), চেয়ারম্যান, রাওয়া, বিশেষ অতিথি আব্দুল কুদ্দুস, জেনারেল সেক্রেটারি, বাংলাদেশ ব্রিজ ফেডারেশন। গোলাম দস্তগীর পরিবারের সদস্য রুম্মান দস্তগীর ও আয়েশা দস্তগীর এ সময় উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন টুর্নামেন্টের প্রধান সমন্বয়ক ব্রিঃ জেনাঃ মোঃ আজিজুল হক।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেজর খন্দকার নূরুল আফসার (অবঃ) বলেন- কাজী গোলাম দস্তগীর সেনাবাহিনীর চৌকস, মেধাবী ও অনুকরণীয় ব্যক্তিত্ব ছিলেন। তিনি ব্রিজ খেলায় খুবই পারদর্শী ছিলেন। স্যারের নামে এমন একটি টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে পেরে রাওয়া পরিবার গর্বিত। রাওয়ায় এ টুর্নামেন্টের মধ্য দিয়ে ব্রিজ খেলার নতুন ইতিহাস রচিত হলো। ব্রিজ খেলাকে মাইন্ড গেইম অর্থাৎ মস্তিষ্কের খেলা হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়। এ খেলায় মেধা ও মননের বিকাশ ঘটে। প্রতিবছর আমরা কাজী গোলাম দস্তগীর মেমোরিয়াল ডুব্লিকেট ব্রিজ চ্যাম্পিয়নশীপ-এর আয়োজন করবো।

তিনি আরো বলেন- সেনাবাহিনীতে অনেক মেধাবী ব্রিজ খেলোয়াড় রয়েছে। আশা করি ভবিষ্যতে তারাও টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করবে।

উপস্থিত বক্তারা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী সকলকে শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করেন ও আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন- ভবিষ্যতে এ টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণকারীদের মধ্য থেকে বিশ্বমানের ব্রিজ খেলোয়াড় বেরিয়ে আসবে। যারা বিশ্বদরবারে বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করবে।

উপস্থিত দস্তগীর পরিবারের সদস্যদের হাতে রাওয়া ক্রেস্ট প্রদান করেন প্রতিষ্ঠানটির সম্মানিত চেয়ারম্যান মহোদয়।

প্রধান অতিথি চেয়ারম্যান, রাওয়া মেজর খন্দকার নূরুল আফসার (অবঃ) বিজয়ীদের হাতে ট্রফি, মেডেল ও নগদ অর্থ তুলে দেন।

দলগত পর্যায়ে এ বছরের প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়- ব্রিজ লাভার্স। দলটি গত বিশ্বকাপ ব্রিজ টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে অংশগ্রহণ করেছিলো। পুরস্কার হিসেবে বিজয়ী দলকে মেডেল, নগদ অর্থ ১৮,০০০ টাকা ও চ্যাম্পিয়নশীপ ট্রফি প্রদান করা হয়।

দলগত পর্যায়ে রানার্স আপ হয়- এসিইএস আলফা। প্রতিভাবান খেলোয়াড়দের সমন্বয়ে এ দলটি গঠিত। পুরস্কার হিসেবে বিজয়ী রানার্স আপ দলকে মেডেল ও নগদ অর্থ ১২,০০০ টাকা প্রদান করা হয়।

দলগত পর্যায়ে তৃতীয় স্থান অধিকার করে- রয়েল ফ্লাশ। বুয়েটের ছাত্রদের সমন্বয়ে এ দলটি গঠিত। পুরস্কার হিসেবে এ দলকে মেডেল ও নগদ অর্থ ৬,০০০ টাকা প্রদান করা হয়।

চতুর্থ স্থান অধিকার করে- লিবার্টি। পুরস্কার হিসেবে এ দলকে মেডেল প্রদান করা হয়।

এছাড়াও তিনটি পেয়ার ও একজন নারী খেলোয়াড়কে বিশেষ পুরস্কার হিসেবে নগদ অর্থ প্রদান করা হয়।