৬০ কোটি টাকা খরচের খবর সঠিক নয়: মন্ত্রণালয়

নিউজ ডেস্ক:  বিতর্কিত ‘রাজাকারের তালিকা’ করতে সরকারের ৬০ কোটি টাকা খরচ হয়েছে জানিয়ে গণমাধ্যমে প্রচারিত সংবাদটি সত্য নয় বলে জানিয়েছে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

বৃহস্পতিবার মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এতথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে ‘রাজাকারের তালিকা করতে ৬০ কোটি টাকা খরচ’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হকের দৃষ্টিগোচর হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মন্ত্রী জানিয়েছেন- ‘এ তালিকা প্রণয়নের জন্য কোনও অর্থ বরাদ্দ দেয়া হয়নি বা বরাদ্দ চাওয়াও হয়নি। কাজেই একটি পয়সাও খরচের প্রশ্নই আসেনা। এটি একটি অসত্য তথ্য।’

এ ধরনের অসত্য সংবাদ প্রকাশ বা প্রচার থেকে বিরত থাকার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে অনুরোধ করেছেন মুক্তিযদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এ সংবাদ প্রকাশ ও প্রচারকারী কর্তৃপক্ষ সংবাদটি প্রত্যাহার করে আগামী ২৫ ডিসেম্বরের মধ্যে নি:শর্ত ক্ষমা প্রার্থনা না করলে তার বা তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এরআগে বুধবার সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের বক্তব্যের বরাত দিয়ে কয়েকটি গণমাধ্যমে রাজাকারের তালিকা করতে ৬০ কোটি টাকা খরচ হয়েছে জানিয়ে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

স্বাধীনতার ৪৮ বছর পর গত রোববার প্রথম ধাপে ১০ হাজার ৭৮৯ রাজাকারসহ স্বাধীনতাবিরোধীদের নামের তালিকা প্রকাশ করা হয়।

সরকার ঘোষিত স্বাধীনতাবিরোধীদের ওই তালিকায় গেজেটভুক্ত মুক্তিযোদ্ধা, শহীদ পরিবারের সদস্য ও সংগঠকের নাম আসায় ক্ষোভ আর সমালোচনার ঝড় ওঠে। দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভও হয়। মুখোমুখি অবস্থান নেয় স্বরাষ্ট্র ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়।

রাজাকারের তালিকায় মুক্তিযোদ্ধা থাকা প্রসঙ্গে মঙ্গলবার মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাই প্রকাশ হয়েছে।’ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘আমাদের তথ্য অনুযায়ী তালিকা প্রকাশ হয়নি।’

এরই মধ্যে বুধবার দুপুরে স্বাধীনতাবিরোধীদের তালিকা যাচাই-বাছাই ও সংশোধনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশের কথা জানান আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। অবশেষে বুধবার বিকেলে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় ওই তালিকা স্থগিত করে।