ছাত্ররাই এই শহরের মেয়র

দীর্ঘ ২৮ বছরের বন্ধ্যাত্ব ভেঙ্গে পুনরুদ্ধার করা হয়েছে সলিমুল্লাহ মুসলিম হল ছাত্র সংসদের জন্য বরাদ্দকৃত কক্ষটি । প্রাচীণ এই ছাত্র সংসদটিই এদেশের প্রতিনিধিত্বমূলক গণতান্ত্রিক ছাত্র রাজনীতির আতুঁঘর । এমনকি ডাকসুর চেয়েও প্রাচীণ এই ছাত্র সংসদ। নানাবিধ কারণেই ঐতিহ্য আর স্মৃতির পাতায় মুখরিত এই হলের আঙিনা আর হল ছাত্র সংসদ।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের যাত্রা লগ্নেই ১৯২১-২২ মেয়াদে সর্ব প্রথম ছাত্র সংসদের ভিপি নির্বাচিত হন আবদুল আজিজ। কালের বিবর্তনে নির্বাচিতদের মাঝে উল্লেখ্য সহ-সভাপতি ছিলেন জাতীয় চার নেতার একজন সৈয়দ নজরুল ইসলাম (১৯৪৭-৪৮) , মো:ফরাসউদ্দিন (১৯৬৩-৬৪) , মো: শামসুল হক(১৯৫২-৫৩),এএম আব্দুল মুহিত(১৯৫৪-৫৫) প্রমুখ। নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদকের মাঝে প্রথম ছিলেন মিজানুর রহমান(১৯২১-২২) ।নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদকদের মাঝে আরো ছিলেন বিখ্যাত সাহিত্যিক মো:আলাউদ্দিন আল আজাদ (১৯৫৩-৫৪),সাদাত হোসেন (১৯৬৬-৬৭)।

এই হলের ছাত্র সংসদ কর্তৃক আজীবন সদস্য পদে ভূষিত হয়েছেন বিশ্ব কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, পিসি রায়, লর্ড লিটন, স্যার পিজে হার্টগ,কাজী নজরুল ইসলাম, ওস্তাদ আলাউদ্দিন খান প্রমুখ। অত্যন্ত গর্বের  বিষয় এই যে সলিমুল্লাহ মুসলিম হলের আবাসিক শিক্ষার্থী ছিলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান, শেখ কামাল।

দীর্ঘ দিনের ছাত্র সংসদের অনুপস্থিতি আর অব্যবস্থাপনার কাটাঁতারে নানাবিধ সমস্যায় জর্জরিত ছিল এই হল টি । সর্বশেষ ডাকসু এবং হল সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ হতে মনোনীত হয়ে আমাদের ইশতেহারের মূল উদ্দেশ্য ছিল জ্ঞাণতৈরী, গবেষণা আর শিল্প চর্চার জন্য একটি আদর্শ পরিবেশ বিনির্মাণ করা । শিক্ষার্থীদের ব্যাপক সমর্থন আর প্রত্যক্ষ ভোটে আমরা বাংলাদেশ ছাত্রলীগ মনোনীত পূর্ণাঙ্গ প্যানেল নির্বাচিত হয়ে প্রথম থেকেই আবাসন সংকট আর খাদ্য সমস্যাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে প্রতিটি কার্যক্রম সম্পন্ন করেছি।

ইতোমধ্যে হলের খাবারের ক্যান্টিন পরিবর্তন এবং গুণগত মান বৃদ্ধিকরণ, নতুন খাবারের দোকান সংযোজন, শহীদ শেখ কামাল ফুটবল টুর্ণামেন্ট আয়োজন, হলের মাঠ সংস্কার , পহেলা বৈশাখের পান্তা ইলিশ আয়োজন, ঐতিহ্যবাহী কুপি বাতি প্রজ্জ্বলন, দেয়ালিকা উদ্বোধন, ফিল্ম ফেষ্ট আয়োজন, সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা, হলের সৌন্দর্য বৃদ্ধিকরণ, ঝুকিপূর্ণ স্থান সমূহ সংস্কার, নিরাপদ খাবার পানি সরবারহ, পাঠকক্ষ আধুনিকিকরণ, পাঠাগারে নতুন বইয়ের সংযোজন , দীর্ঘদিনের জারজীর্ণ ডাইনিং তথা সার্বক্ষণিক ভাবে তদারকি নিশ্চিত করেছি। এছাড়া, হলের যে কোন কর্মকান্ডে সর্বোচ্চ জবাবদিহীতা এবং স্বচ্ছতা নিশ্চিতকরণ সহ হলের কর্মচারীদের দায়িত্ব নিশ্চিত করণে সদা জাগ্রত আমরা । তবে  আবাসন সংকট নিরসনে আমাদের সর্বোচ্চ চাওয়া হল নতুন একটি ভবন নির্মাণ করা হোক । অন্যথায়, নিকট ভবিষ্যতে আবাসন সংকটের বিষয়টি আরো গুরুতর হয়ে উঠবে ।আমাদের সুযোগ হয়েছিল মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট বিষয়টি তুলে ধরার।আমরা আশাবাদী । 

শিক্ষার্থী তথা শিক্ষার্থীদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট যে কোন বিষয়ে  আমাদের নিকট , “ শিক্ষার্থী স্বার্থই সর্বাগ্রে প্রথম”। আমরা বিশ্বাস করি  , ছাত্ররাই এই শহরের মেয়র আর ছাত্ররাই এই শহরের    সকল অনাচারের বিরুদ্ধে গর্জে ওঠা মাস্তান।

লেখক:সামসুল আরেফিন সেজান,সদস্য, সলিমুল্লাহ মুসলিম হল ছাত্র সংসদ

সম্পাদনা:ওবায়দুর রহমান সোহান