কবির উদ্দিনে আশাবাদী তৃণমূলের কর্মীরা : আব্দুর রহমান

৮০দশকে শিক্ষা,শান্তি,প্রগতির সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের লামাবাজার ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ার মাধ্যমে ছাত্র রাজনীতি শুরু করা পিতা মুজিব আদর্শের এক লড়াকু সৈনিক কবির উদ্দিন।ছাত্ররাজনীতি শেষ করেই নিজ যোগ্যতা আর নেতৃত্বগুনে জায়গা করে নেন সিলেট আওয়ামীলীগের প্রতিষ্টাকালীন সদস্য হিসেবে।

পরবর্তীতে সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যক্রমকে গতিশীল করা লক্ষ্যে তৎকালীন নেতৃবৃন্দ তাকে দায়িত্বদেন সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদকের।সেখানেও বাজিমাত করেন কবির উদ্দিন।

বিভিন্ন সময় বার বার কারা নির্যাতিত কবির উদ্দিন জীবন মৃত্যূর সন্ধিক্ষণ থেকে ফিরে আসেন
২০০৪ সালে। গুলশান সেন্টারে যখন সিলেট নগর আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সভা চলছিল তখন সিলেট আওয়ামীলীগকে নেতৃত্বশূণ্য করার লক্ষে সন্ধ্যার পর ওই সভা শেষে সেখানে অতর্কিত গ্রেনেড হামলা চালানো হয়। এতে নগর আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক ইব্রাহিম আলী নিহত হন।

আহত হন নগর কমিটির বিভিন্ন পদে থাকা ২১ নেতা।সেই হামলায় তিনিও গুরুতর আহত হন। এখনো তার শরীরে রয়েছে স্প্লিন্টারের ক্ষতচিহ্ন।স্প্লিন্টারে আঘাতও কবির উদ্দিনের দৃঢ় মনোবলে ফাটল ধরাতে পারে নি?
থেমে থাকেন নি কবির উদ্দিন বরং স্প্লিন্টারের আঘাত শরীরে নিয়েও তিনি সিলেট আওয়ামীলীগের কার্যক্রম ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ কে গ্রাম থেকে গ্রামান্তরে ছড়িয়ে দিতে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন।

বিগত দিনে কবির উদ্দিনের দলের প্রতি অানুগত্য ও বিগত সিলেট সিটি কর্পোরেশন এবং জাতীয় নির্বাচনে দলীয় প্রতিকের পক্ষে প্রচারণায় নির্ঘুম রাত ও সক্রীয় ভূমিকা রাখায় এবং সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্ব সফলতার সহিত পালন করায় তৃণমূলের কর্মীরা এবার ধরে নিচ্ছেন তার অতীত রাজনৈতিক পথচলা বিবেচনায় নিয়ে আসন্ন ৫ই ডিসেম্বরের সম্মেলনে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলার স্বার্থক কারিগর বঙ্গকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার কর্মসূচি বাস্তবতায়নে ও সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের কার্যক্রমকে অধিক শক্তিশালী করতে এবার দেওয়া হবে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব।

লেখক,
আব্দুর রহমান
সহ সাধারণ সম্পাদক,সিলেট মহানগর শ্রমিকলীগ।