শুক্রবারেই মুক্তি পাচ্ছে ‘ন ডরাই’

নিউজ ডেস্ক:  গল্প ও নির্মাণে প্রশংসিত হলেও আপত্তিকর সংলাপের জন্য সেন্সর বোর্ডে আটকে যায় সার্ফিং নিয়ে দেশের প্রথম পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘ন ডরাই’। ফলে ২৯ নভেম্বর ছবিটির মুক্তি নিয়ে তৈরি হয় সংশয়। অবশেষে কেটে গেছে সে সংশয়। ছবিটির পরিচালক তানিম রহমান অংশু জানালেন, ‘সেন্সর ছাড়পত্র মিলেছে, ঘোষিত দিনই মুক্তি পাচ্ছে ন ডরাই।

‘ন ডরাই’ স্টার সিনেপ্লেক্সের প্রথম প্রযোজিত ছবি। ছবিটির প্রধান দুটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন শরিফুল রাজ, সুনেরা বিনতে কামাল।

ছবির চিত্রনাট্য লিখেছেন কলকাতার শ্যামল সেনগুপ্ত। এর আগে এই চিত্রনাট্যকার দেবের ‘বুনোহাঁস’ ও অমিতাভ-দীপিকার ‘পিংক’ ছবির চিত্রনাট্য লিখে প্রশংসিত হন।

বৃহস্প্রতিবার ছবিটি সেন্সর বোর্ডে প্রদর্শিত হয়। বোর্ডের সদস্যরা ছবিটি দেখে প্রশংসা করলেও কিছু সংলাপ নিয়ে আপত্তি জানান। এই আপত্তির জন্যই ছবিটিকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়নি।

সেন্সর পাওয়ার পর নিম রহমান অংশু বলেন, সেন্সর ছাড়পত্র হাতে পেয়েছি। তবে সেন্সর বোর্ড থেকে নীতিমালা অনুযায়ি আমাদের কিছু দিক নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। যদিও কারেকশানগুলো খুব বেশি না, ছবির সৌন্দর্য যেন নষ্ট না হয় সেভাবেই আমরা দর্শকের সামনে ‘ন ডরাই’ উপস্থাপন করতে পারবো বলে আশা রাখছি।’

ছবিটির নায়ক শরিফুল রাজ বলেন, ছবিটি নিয়ে আমার প্রত্যাশা বেশ। কতটা পরিশ্রম করেছি সেটা দর্শক ছবিটি দেখার পর বোঝতে পারবেন। ছবিটি প্রশংসা নিয়ে নেন্সর পেয়েছে খবরটি পেয়ে আমারও ভালো লাগছে।

সেন্সর পাওয়ার খবরে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন ছবিটির নায়িকা সুনেরা বিনতে কামালও।

‘ন ডরাই’ শব্দের মানে হলো ভয় করি না। ছবিতে সমাজ ও পরিবারের ভয়কে জয় করে সার্ফার হিসেবে এক নারীর প্রতিষ্ঠার গল্প তুলে ধরা হয়েছে, যা অন্য নারীদের উৎসাহিত করবে বলে মনে করছেন ছবি সংশ্লিষ্টরা।