তেলের দাম বাড়ায় ফুঁসে উঠেছে ইরান

নিউজ ডেস্ক:     সরকারের তেলের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্তে শনিবার ফুঁসে উঠেছে ইরান। রাজধানী তেহরানসহ দেশটির ৫ টি শহরে বিক্ষোভ শুরু করেছে ইরানের জনগণ। শহরগুলোতে এদিন পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন বিক্ষোভকারী। এছাড়া একজনের মৃত্যুর ঘটনাও ঘটেছে বিক্ষোভের প্রথমদিনে। খবর বিবিসির।

ইরান সরকারের নতুন সিদ্ধান্তে জ্বালানী তেলের দাম ৫০ শতাংশ বেড়ে গেছে একদিনে। মার্কিন নিষেধাজ্ঞার পরিপ্রেক্ষিতে জ্বালানী তেলের দাম এমন অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির সরকার। কিন্তু এতে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে দেশটির অর্থনীতিতে। শেষমেষ তেলের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে রাস্তায় নেমে আসে হাজার হাজার মানুষ।

ইরানের রাষ্ট্রয়াত্ব সংবাদসংস্থা আইআরএনএ জানায়, রাজাধানী তেহরান ও সিরজান শহরে শুক্রবার রাতে আকস্মিকভাবে মানুষজন জ্বালানী তেলের গুদামগুলোতে হামলা করে বসে। বিক্ষোভকারীরা এসময় এসব গুদামে আগুন লাগিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে।

এছাড়া শনিবারে মারশাদ, বীরজান্দ, আহভাজ, গাশসারান, আবাদান, খোরামশাহর, মাশার, সিরাজ এবং বন্দর আব্বাসেও বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে বলে খবর প্রকাশ করেছে ইরানের স্বায়ত্বশাসিত সংবাদসংস্থা আইএসএনএ। সিরজানের গভর্ণর সংবাদসংস্থাকে জানান, শনিবারের বিক্ষোভে একজন নিহত ও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে।

এছাড়া ইরানের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর মারশাদে ডজনখানেক বিক্ষোভকারী তাদের গাড়ি রাস্তায় দাঁড় করে প্রধান সড়কটি বন্ধ করে দিয়েছেন।

এদিকে প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি শনিবার এক বিবৃতিতে জানান, ৭৫ শতাংশ ইরানি চাপের মধ্যে আছে। কিন্তু অতিরিক্ত ট্যাক্স থেকে আদায়কৃত অর্থ জনগণের কাছেই পৌঁছবে, রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা করা হবে না।