শ্রীপুরে স্কুল ছাত্রী আন্নীর মৃত্যু নিয়ে ফেসবুকে তোলপাড়!

আলফাজ সরকার আকাশ, শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি: গাজীপুরের শ্রীপুরে স্কুল ছাত্রী আন্নী আক্তার বাঁধন (১৫)-এর মৃত্যু নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। সে শ্রীপুর সরকারি  পাইলট  উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থী ছিল বলে জানা গেছে।

মৃত্যুটি আত্মহত্যা,না এর আড়ালে অন্য কিছু রয়েছে এ নিয়ে চলছে নানা গুণজন। এ ঘটনার অধিকতর তদন্তের দাবী অনেকের।

শ্রীপুর সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শফিকুল ইসলাম তার ফেসবুক আইডিতে লিখেছেন – এই ফুটফুটে মেয়েটি কি মরতে পারে? তারতো স্বপ্ন ভেলায় ভেসে বেড়ানোর কথা,মেঘের ঘুড়ি চরে কল্পলোকে যাওয়ার কথা, তবে কেন এ আত্নহনন?? কেউ বাধ্য করেনি তো? কেউ তার অমূল্য সম্পদ বিনষ্ট করেনি তো? পাবো কি এর সঠিক উত্তর, নরপিশাচদের খুঁজে বের করে দিন শাস্তি। আমাদের বোনদের বুক ভরে নিশ্বাস নিতে এ মানবিক উপশহরে,,,,,,,,,,,

শ্রীপুর পৌরসভার নাগরিক অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহবায়ক আনোয়ার হোসেন তার ফেসবুক আইডিতে লিখেছেন -ছবিটি দেখে বলুন বন্ধুরা, এটা হত্যা নাকি আত্মহত্যা? আত্মহত্যা করলে কি বিছানায় দাড়িয়ে থেকে করা সম্ভব? নিশ্চয়ই সম্ভব নয়, এটা একটা পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড ছাড়া কিছু নয়! বাঁধন কে হত্যা করে ঝুলিয়ে দেয়া হয়েছে -এটা বুঝতে বিশেষজ্ঞ হওয়ার প্রয়োজন নেই! অথচ কিছু পত্রিকার সাংবাদিক ও প্রশাসন – এই হত্যাকে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দিতে চাইছে! খুনের প্রকৃত কারন প্রকাশ করুন। খুনীকে আড়াল করা ও খুনকে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার অপচেষ্টা বন্ধ করুন।অবিলম্বে হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত সকলকে আইনের আওতায় দেখতে চাই। বাঁধন হত্যার বিচার চাই!

অন্য এক স্টাটাসে তিনি লিখেছেন –হোক প্রতিবাদ! আন্নী আক্তার বাঁধন মৃত্যুর তদন্তের দাবী জানাই! মৃত্যুর প্রকৃত কারণ কি? এটা খুন নাকি আত্মহত্যা? আত্মহত্যা হলে কে বা কারা প্ররোচিত করেছে? আত্মহত্যার প্ররোচনাকারীও খুনের অপরাধে অপরাধী! তাদের কেন গ্রেফতার করা হচ্ছে না? এ ব্যাপারে থানায় কোনো মামলা হয়েছে কি? কেন হলোনা? কিছু অনলাইন পোর্টাল হত্যাকাণ্ডকে আত্মহত্যা বলে নিউজ করেছে (!) কেন করেছে বা কাদের স্বার্থে এমন একপেশে নিউজ? ঘটনাটি প্রেম ঘটিত নাকি ধর্ষণ জনিত তাও পরিস্কার নয়, পোস্টমর্টেম রিপোর্ট ছাড়া, তদন্ত ছাড়া এমনকি মেয়েটির প্রেমিকের পরিচয় প্রকাশ ছাড়া কিংবা আত্মহত্যার ঘটনার কারন বিশ্লেষণ ছাড়া – আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার বিষয়টি সন্দেহ জনক। হত্যার সাথে জড়িতদের আড়াল করার পায়তারা হচ্ছে নাতো? সঠিক তদন্তের মাধ্যমে সত্য প্রকাশ হোক। ধামাচাপা দেয়া যাবেনা – জাগ্রত আছি।

সাংবাদিক আসাদুজ্জামান বিপু তার আইডিতে লিখেছেন –শ্রীপুরের ইতিহাসে জন্ম নিল নতুন আরেকটি কলঙ্ক, ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে আমাদের জবাব দেয়ার মত কোন উত্তর আছে কি,,,? ফুটফুটে এই মেয়েটির মৃত্যুর পিছনে কোন রহস্য আছে কিনা প্রশাসনের কাছে সাধারন জনগনের প্রশ্ন,,,?

শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবদুল মালেক জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছিল। তদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর বিস্তারিত বলা যাবে।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লিয়াকত আলী জানান, এ ঘটনার তদন্ত চলছে।বিস্তারিত জানতে এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তার সাথে কথা বলুন।

উল্লেখ , ১৩ নভেম্বর উপজেলার বরমী ইউনিয়নের গাড়ারণ গ্রামের বাদল মিয়ার মেয়ে আন্নী আক্তার বাঁধনের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। সে শ্রীপুর সরকারি  পাইলট  উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থী ছিল। ঘটনার পর প্রাথমিক ভাবে পুলিশ জানিয়েছিল এটি আত্মহত্যা। ওই দিনই নিহতের নানী রানী আক্তার বাদী হয়ে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করে।

জাহিদ/ঢাকানিউজ২৪ডটকম।