রক্তের অক্ষরে শপথের স্বাক্ষর শীর্ষক গণস্বাক্ষর কর্মসূচি উদ্বোধন

নিউজ ডেস্ক:   জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগ হামলা চালিয়েছে। রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষকে এই সংগঠনের গুন্ডারা পুকুরে ফেলে দিয়েছে। ছাত্রলীগ এখন গুন্ডালীগে পরিণত হয়েছে। পুলিশ ও গুন্ডা দিয়ে আন্দোলন দমন করবেন? মনে রাখবেন, এ দেশে গুন্ডামি করে কোনো সরকার টিকতে পারেনি, ভবিষ্যতেও পারবে না।’

বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে থেকে দেশব্যাপী ‘রক্তের অক্ষরে শপথের স্বাক্ষর’ শীর্ষক গণস্বাক্ষর কর্মসূচি উদ্বোধন করতে গিয়ে প্রধান অতিথি জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আব্দুর রব এ কথা বলেন। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার দ্রুত দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবিতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট সারাদেশে এই কর্মসূচি পালন করে।

এর আগে মতিঝিলে নিজের চেম্বারে সকালে এ কর্মসূচির অংশ হিসেবে লাল কালিতে সর্বপ্রথম স্বাক্ষর করেন ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন। প্রেসক্লাবের সামনে কর্মসূচিতে ঐক্যফ্রন্টের দপ্তর প্রধান জাহাঙ্গীর আলমের সঞ্চালনায় কর্মসূচির সমন্বয়ক ও গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক ড. রেজা কিবরিয়া, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অধ্যাপক আবু সাইয়িদ, মেজর জেনারেল (অব.) আ ম সা আমিন, জেএসডির সহসভাপতি তানিয়া রব, বিকল্পধারা বাংলাদেশের একাংশের সভাপতি অধ্যাপক ড. নূরুল আমিন ব্যাপারীসহ ঐক্যফ্রন্টের নেতারা এতে অংশ নেন।

এ সময় আ স ম রব বলেন, আবরার হত্যার বিচার চেয়ে রক্তের অক্ষরে শপথের স্বাক্ষর সংগ্রহ করা হচ্ছে। সারাদেশের সব স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা থেকে স্বাক্ষর নিয়ে জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় জমা দেওয়া হবে। প্রত্যেক দূতাবাস ও আন্তর্জাতিক সংস্থার অফিসেও এই স্বাক্ষরসংবলিত দাবির অনুলিপি দেওয়া হবে। বক্তব্যের পর জাসদ নেতা নিজের আঙুল কেটে সেই রক্ত দিয়ে ফাহাদ হত্যার বিচারের দাবি জানিয়ে সাদা কাপড়ে স্বাক্ষর করেন।