ধানমন্ডিতে জোড়া খুনের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন

নিউজ ডেস্ক:   রাজধানীর ধানমন্ডি এলাকায় এক শিল্পপতির ফ্ল্যাটে খুন হওয়া দুজনের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। তিন সদস্যের বোর্ড গঠন করে আজ শনিবার এ ময়নাতদন্ত করা হয়।

বোর্ডের প্রধান ছিলেন ফরেনসিক বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সহযোগী অধ্যাপক ড. সোহেল মাহমুদ। সঙ্গে ছিলেন প্রভাষক প্রদীপ বিশ্বাস ও কবির সোহেল।

ময়নাতদন্ত শেষে কবির সোহেল জানান, নিহত দুজনের শরীরে ছুরিকাঘাতের একাধিক জখম ছিল।

বোর্ডের প্রধান সোহেল মাহমুদ প্রথম আলোকে জানান, আফরোজা বেগমের পেটে, বুকে ছুরিকাঘাত করা হয়। এর মধ্যে একটি আঘাত তাঁর কিডনি ভেদ করে। এতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তাঁর মৃত্যু হয়। গৃহকর্মীর ক্ষেত্রে তিনি বলেন, তাঁকেও ছুরিকাঘাত করা হয়। তবে গলা কাটার কারণেই তার মৃত্যু হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যার পর ধানমন্ডি ২৮ নম্বর সড়কের ২১ নম্বর বাসার পঞ্চম তলায় মনির উদ্দিন নামের এক শিল্পপতির ফ্ল্যাটে জোড়া হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত দুজন হলেন আফরোজা বেগম (৬৫) ও গৃহকর্মী দিতি (১৭)। মনির উদ্দিন তৈরি পোশাকশিল্প মালিকদের শীর্ষ সংগঠন বিজিএমইএর একজন পরিচালক। আফরোজা বেগম সম্পর্কে তাঁর শাশুড়ি।

পুলিশ জানিয়েছে, নিহত দুজনের গলায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। আশপাশের লোকজনের কাছ থেকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে ফ্ল্যাটের দরজা ভেঙে পুলিশ ভেতরে ঢোকে। ফ্ল্যাটের দুটি আলাদা কক্ষে দুজনের লাশ পাওয়া গেছে। আশপাশের লোকজনকে জিজ্ঞেস করে জানা গেছে, কয়েক দিন আগে নতুন একজন গৃহকর্মী ওই ফ্ল্যাটে কাজ শুরু করেন। এ ঘটনায় ওই গৃহকর্মী জড়িত কি না, সেটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শিল্পপতি মনিরের দেহরক্ষী বাচ্চু ও ভবনের এক নিরাপত্তাকর্মীকে আটক করা হয়েছে।