সরকারের সিন্ডিকেটের কারণে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে

নিউজ ডেস্ক:  সরকারের সিন্ডিকেটের কারণেই পেঁয়াজের দাম অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। বৃহস্পতিবার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন।

রিজভী বলেন, পেঁয়াজের দাম বেড়েই চলছে। বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় এ পণ্যটির দাম সব রেকর্ড ভেঙেছে। খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম ১৫০ টাকা ছুঁই ছুঁই অবস্থা। দেশি পেঁয়াজ খুচরা বাজারে ১৪০ থেকে ১৪৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। কোথাও কোথাও ১৫০ টাকাও দাম চাওয়া হচ্ছে। আমদানি করা ভারতীয় পেঁয়াজও ১৩০ থেকে ১৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। মিয়ানমার বা মিসর থেকে আনা পেঁয়াজের দামও সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছে আরও আগে।

পেঁয়াজের দামকে ‘শক অব দ্য কান্ট্রি’ অ্যাখ্যা দিয়ে রিজভী আরও বলেন,  দুর্নীতি ও ভুলনীতি সরকারের নীতি হওয়ার কারণে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম আকাশ ছুঁয়েছে।

এসময় তিনি অবিলম্বে পেঁয়াজের দাম সাধারণ মানুষের নাগালের মধ্যে আনার দাবি জানান।

এছাড়াও বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান গিয়াস কাদের চৌধুরীর সাজার রায় প্রসঙ্গে রিজভী বলেন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীকে সাজানো মিথ্যা মামলায় তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। মামলায় বলা হয়েছে তিনি প্রধানমন্ত্রীকে হুমকি দিয়ে বক্তব্য দিয়েছেন, তাই তাকে সাজা দেওয়া হয়েছে। বিচারকের এই রায় পূর্বপরিকল্পিত ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। বিচারক সাজা দেওয়ার জন্য অধিক উৎসাহিত হয়ে দ্রুত বিচারকার্য শেষ করেছেন। শুধুমাত্র রাজনৈতিক কারণেই গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীকে সাজা দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

খালেদা জিয়ার চিকিৎসা প্রসঙ্গ টেনে রুহুল কবির রিজভী বলেন, বিএসএমএমইউ’র পরিচালক বলেছেন বেগম জিয়া প্রস্তুতি নিতে নিতে ২টা আড়াইটা বেজে যায়, অনেক সময় ৪টা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয় চিকিৎসকদের। পরিচালকের এ বক্তব্য মিথ্যা বলে জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর উৎসাহ ও প্রণোদনায় পিজি হাসপাতালের পরিচালক সাবেক প্রধানমন্ত্রীর অসুস্থতা নিয়ে অসৌজন্যমূলক বক্তব্য রেখেছেন বলেও অভিযোগ করেন সিনিয়র এ বিএনপি নেতা।