আমাদের লক্ষ্য উন্নত দেশ গঠনের পাশাপাশি উন্নত জাতি গঠন : তথ্যমন্ত্রী

 তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে উন্নত দেশ গঠনের পাশাপাশি উন্নত জাতি গঠন করা। শুধু বস্তুগত উন্নয়ন দিয়ে উন্নত জাতি গঠন সম্ভব না। আমরা দেখতে পাচ্ছি ইউরোপে অনেক বস্তুগত উন্নয়ন হয়েছে কিন্তু, ইউরোপের সব জাতি কি উন্নত জাতি হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে? সেখানে পরিবার ভেংগে গেছে, মানুষ আত্মকেন্দ্রিক হয়ে গেছে। একে অপরের প্রতি সহমর্মিতা কমে গেছে। উন্নত জাতি গঠনে সাংবাদিকদের ভূমিকা রয়েছে। সাংবাদিকরা গণমাধ্যম চালায়, গণমাধ্যম সমাজের দর্পণ। সাংবাদিকরা মানুষের মনন তৈরি করার ক্ষেত্রে, সরকারকে দিক নির্দেশনা দেওয়ার ক্ষেত্রে, সমাজের অসংগতি তুলে ধরার ক্ষেত্রে, সমাজকে প্রতিবাদী হওয়ার ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখতে পারে।

মঙ্গলবার রাতে জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের বাকী আট শতাংশ জমি এবং আধুনিক ভবন নির্মাণের জন্য তিনি স্থানীয় দুই সাংসদ ও বাসসের এমডিকে নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে যাবেন। একই সাথে প্রয়োজন অনুযায়ী কল্যাণ ভাতা প্রদানসহ এখানকার সাংবাদিকদের জন্য সব রকমের সহায়তা প্রদান করবেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, মানুষ যন্ত্র হয়ে যাচ্ছে। মানবিকতা হারিয়ে যাচ্ছে, মূল্যবোধ হারিয়ে যাচ্ছে। মানুষ শুধু নিজেকে নিয়ে ভাবে। এমনকি মা-বাবাকে নিয়ে ভাবার সময়ও মানুষের নেই। এটা শুধু সমাজের জন্য নয়, মানুষের জন্যও অশুভ। সেক্ষেত্রে গণমাধ্যম ভূমিকা পালন করতে পারে।

মন্ত্রী আরো বলেন, অবশ্যই সমালোচনা সমাজে থাকতে হবে। অবশ্যই সরকারের সমালোচনা হবে, মন্ত্রীর সমালোচনা হবে এবং এই সমালোচনাকে সমাদৃত করার সংস্কৃতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার সরকার লালন করে। আমাকে যখন পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল তখন যেই পত্রিকায় কোথায় পরিবেশ বেশি নষ্ট হচ্ছে, কোথায় সরকার নজর দিচ্ছে না সে ব্যাপারে লিখেছে এবং আমাকে নিয়ে পর্যন্ত কার্টুন বানিয়েছে সেই পত্রিকাকে ডেকে আমি জাতীয় পরিবেশ পদক দিয়েছি।

আমি মনে করি, দায়িত্বে থাকে যিনি, তার সমালোচনা হবে। কারণ, কোন মানুষের পক্ষে শতভাগ নির্ভুল কাজ করা সম্ভব না। কোন সরকারের পক্ষে শতভাগ নির্ভুল কাজ করা সম্ভব না। পৃথিবীতে অতীতেও এমন কোন সরকার ছিল না, ভবিষতেও এমন কোন সরকার থাকবে না যে শতভাগ নির্ভুল কাজ করতে পারে। ভুল সবার থাকবে, সমালোচনাও থাকবে। কিন্তু, কিছু সাংবাদিক বন্ধুর মধ্যে ধারণা আছে ব্যাড নিউজ ইজ গুড নিউজ, গুড নিউজ ইজ নো নিউজ। এই মানুষিকতা পরিহার করার জন্য বিনীত অনুরোধ সবার কাছে। সরকারের ভুল ত্রুটি তুলে ধরতে হবে, একই সাথে সরকারের ভালো কাজের প্রশংসা করতে হবে।

মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের জমকালো এই অভিষেক অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস, মুন্সীগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলম, জাতীয় প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি ওমর ফারুক। গেস্ট অব অর্নারের বক্তব্য রাখেন মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার ও পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম পিপিএম (বার)।

অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত সভাপতি মীর নাসিরউদ্দিন উজ্জ্বল ও সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশীদ খোকা। বিদায়ী সভাপতি রাসেল মাহমুদের সভাপতিত্বে আলোচনা করেন ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও ঢাকাস্থ মুন্সীগঞ্জ-বিক্রমপুর সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি রাজু আহম্মেদ, মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক আহ্বায়ক আতিকুর রহমান, মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি কাজী সাব্বির আহম্মেদ দীপু, সাবেক সভাপতি সাবেক সভাপতি শহীদ-ই-হাসান তুহিন ।

এর আগে নতুন কমিটিকে ফুল দিয়ে ও উত্তরীয় পড়িয়ে অভিষিক্ত করেন প্রধান অতিথি তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।