ভারত-পাকিস্তানের সীমান্তে সংঘর্ষ পাল্টাপাল্টি দোষারোপ

নিউজ ডেস্ক:    জম্মু-কাশ্মীর সীমান্তে ভারত-পাকিস্তানের গুলি বিনিময়ে হতাহতের ঘটনায় এক অন্যকে দোষারোপ করেছে দেশ দুটি। উভয় পক্ষই অভিযোগ করেছে, যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করে এই হামলা চালানো হয়েছে। খবর বিবিসির।

রোববার কাশ্মীরের কুপওয়ারা জেলায় পাকিস্তানি সেনাদের গুলিতে দুই ভারতীয় সেনা ও এক বেসামরিক নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে দেশটির পুলিশ। অন্যদিকে, ভারতীয় সেনার হামলায় ছয় পাকিস্তানি বেসামরিক ও এক সেনা নিহত হয়েছেন বলে ইসলামাবাদ জানিয়েছে।

এর আগেও জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে দুই দফায় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়েছে। তবে এবার দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কের চরম অবনতি হয়েছে। গত আগস্টে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করার পর এটি অন্যতম প্রাণঘাতি ঘটনা বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো।

ভারতের প্রতিরক্ষা বিভাগের ‍মুখপাত্র কর্নেল রাজেশ কালিয়া বলেছেন, কোনো প্ররোচণা ছাড়াই পাকিস্তান যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করেছে। আমাদের সেনারাও পাল্টা জবাব দিয়েছে।

এদিকে পাকিস্তানের সেনা জনসংযোগ বিভাগের ডিজি মেজর জেনারেল আসিফ গফুর টুইটে বলেছেন, ভারতীয় সেনা অস্ত্রবিরতি লঙ্ঘন করে জুরা, শাহকোট এবং নওসেরা সেক্টরে সাধারণ নাগরিকদের নিশানা করেছে। পাক সেনারা এর শক্ত জবাব দিয়েছে।

তবে ভারতের দাবি, নীলম উপত্যকায় একাধিক জঙ্গি ঘাঁটি আছে। সেগুলো থেকে ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালায় জঙ্গিরা। পাকিস্তানি সেনারা তাদের মদদ দেয়। রোববার ভোরেও জঙ্গিদের গতিবিধি নজরে আসায় তাদের লক্ষ্য করে গোলাবর্ষণ করা হয়েছে।

ভারতের সেনাপ্রধান জেনারেল বিপিন রাওয়াত বলেন, কেন্দ্র ওই রাজ্যের বিশেষ মর্যাদাকে বাতিল করার পর থেকেই সন্ত্রাসবাদীরা অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালাচ্ছে। আমরা বার বার তথ্য পাচ্ছি যে, সীমান্ত পেরিয়ে সন্ত্রাসবাদীরা এই দেশে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালাচ্ছে। সন্ত্রাসবাদীদের অনুপ্রবেশের জন্যেই রোববার পাকিস্তানের সেনাবাহিনী ভারতীয় সেনার চৌকি লক্ষ্য করে গুলি চালায়।