অবশেষে ঢাবি তে বহুল আকাঙ্ক্ষিত ‘জোবাইক’-এর যাত্রা শুরু

ওবায়দুর রহমান সোহান, ঢাবি প্রতিনিধি :

বিভিন্ন জল্পনা-কল্পনা এবং সুদীর্ঘকাল অপেক্ষার পরে ঢাবি ক্যাম্পাসে অবশেষে অ্যাপভিত্তিক সাইকেল সেবা ‘জোবাইক’-এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু)-এর উদ্যোগে ক্যাম্পাসে অ্যাপভিত্তিক এই সাইকেল সেবা কর্মসূচি চালু হয়েছে।

আজ ১৬ অক্টোবর ২০১৯ বুধবার ৩ টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান টিএসসি চত্বরে আনুষ্ঠানিকভাবে জোবাইক কর্মসূচির শুভ
উদ্বোধন করেন।

ডাকসুর ছাত্র পরিবহন সম্পাদক শামস্ ঈ নোমান-এর সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় শিক্ষা উপমন্ত্রী, মহিবুল হাসান চৌধুরী এমপি।

উদ্বোধনি বক্তব্যে ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, ক্যাম্পাসে পরিবহন খাতের উন্নয়নে ‘জোবাইক’ কর্মসূচি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। ‘জোবাইক’ ব্যবহারের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের সময় সাশ্রয় হবে এবং পরিবহন ব্যয় কমবে বলে আমি আশাবাদি।

এছাড়াও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ ডাকসু’র ভিপি নুরুল হক নুর, জিএস গোলাম রব্বানীসহ ডাকসু’র নেতৃবৃন্দ অনুষ্ঠানে বক্তব্য

যেভাবে চলবে জোবাইক:

জোবাইকের স্মার্ট সাইকেলের সঙ্গে থাকবে অত্যাধুনিক লক, সোলার প্যানেল, জিপিএস ইত্যাদি। এই সাইকেলের লক খোলার জন্য দরকার হবে একটি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ। অ্যাপের মাধ্যমে সাইকেলের সঙ্গে থাকা কিউআর কোড স্ক্যান করে সাইকেলটি ব্যবহার করা যাবে।

সেবাটি গ্রহণ করার জন্য শিক্ষার্থীদের বৈধ পরিচয়পত্র (আইডি কার্ড) দেখিয়ে ক্যাম্পাসে জোবাইকের নির্দিষ্ট বুথ থেকে নিবন্ধন করতে হবে। নিবন্ধনের সময় শিক্ষার্থীদের অ্যাকাউন্টে সর্বনিম্ন ১০০ টাকা রিফিল করতে হবে।

অ্যাপের মাধ্যমে স্ক্যান করে সাইকেলের লক খোলার সঙ্গে শুরু হবে সময় গণনা। গন্তব্যে পৌঁছে ব্যবহারকারী যখন সাইকেলটি স্ট্যান্ড করে পুনরায় লক করবেন, তখন শেষ হবে তার রাইড।

সাইকেল ব্যবহারের জন্য প্রথম ৫ মিনিটে গুনতে হবে ২ টাকা ৫০ পয়সা এবং পরবর্তী মিনিট থেকে প্রতি মিনিটে ৪০ পয়সা।

বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের প্রতিটি আবাসিক হল, কার্জন হল, কলাভবন, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ, সামাজিক বিজ্ঞান ভবন, টিএসসি, কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে জোবাইকের স্ট্যান্ড রাখা হয়েছে।