তৈরি পোশাক : কারখানা সংস্কারে সময় বেঁধে দিল সরকার

নিউজ ডেস্ক:   জাতীয় উদ্যোগে চলমান সংস্কার অগ্রগতিতে পিছিয়ে থাকা কারখানাকে বিভিন্ন মেয়াদে সময় বেঁধে দিয়েছে সরকার। শ্রম মন্ত্রণালয়ের অধীন কল-কারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর (ডিআইএফই), বিজিএমইএ এবং সংশ্লিষ্ট কারাখানা কর্তৃপক্ষের মধ্যে অনুষ্ঠিত বৈঠকে নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে সংস্কার শেষ করার সিদ্ধান্ত হয়। রাজধানীর কারওয়ান বাজারে ডিআইএফই কার্যালয়ে বৃহস্পতিআর এবং বুধবার এ নিয়ে দুটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, যেসব কারখানার ইউটিলাইজেশন ডিক্লারেশন (ইউডি) ২০টির বেশি সেসব কারখানার সংস্কার কাজ শেষ করতে হবে ২ থেকে ৪ মাসের মধ্যে। যেসব কারখানার ইউডি ২০টির নিচে এবং ১০টির ওপরে, তাদেরকে সংস্কারের জন্য সর্বোচ্চ ছয় মাস সময় দেওয়া হয়েছে। বার্ষিক ইউডি ১০টির নিচে থাকা কারখানাকে কেস টু কেস ভিত্তিতে সময় বেঁধে দেওয়া হবে। সংস্কার অগ্রগতি না হলে নিরাপত্তার স্বার্থে এসব কারখানার ইউডি বন্ধ করে দেওয়া হতে পারে। এ ছাড়া নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সংস্কার অগ্রগতি দেখাতে না পারলে ডিআইএফই এবং বিজিএমইএর পক্ষ থেকে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে মালিকদের সতর্ক করা হয়।

বৈঠকে প্রধান অতিথি শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব কেএম আলী আজম বলেন, সরকার আন্তরিকভাবে চায়, কারখানাগুলো সংস্কার কাজ শেষ করে উৎপাদনে টিকে থাক। যত বেশি কারখানা ব্যবসায় টিকে থাকবে, দেশের ও সরকারের তত লাভ; কিন্তু অবশ্যই নিরাপত্তামানে তা উত্তীর্ণ হতে হবে। কোনো সহযোগিতার প্রয়োজন হলে সরকার তা দিতে প্রস্তুত। তবে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সংস্কার না করলে নিরাপত্তার স্বার্থে কঠোর হওয়া ছাড়া কোনো উপায় থাকবে না।

ডিআইএফইর মহাপরিদর্শক শিবনাথ রায় বলেন, সংস্কার কার্যক্রম শেষ করতে মালিকপক্ষকে বারবার চিঠি দেওয়া সত্ত্বেও অগ্রগতি নেই। বিজিএমইএ সভাপতি ড. রুবানা হক বলেন, ত্রুটিপূর্ণ কারখানাগুলোকে তিনটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করেছে বিজিএমইএ। আগামী ১২, ১৫ ও ১৯ অক্টোবর এসব কারখানার মালিকের বক্তব্য শুনবেন তারা। তাদের বক্তব্য জানার পর ডিআইএফইতে সুপারিশ দেওয়া হবে। সরকার যা ভালো মনে করে, সেই সিদ্ধান্ত নেবে।

সভায় বুয়েটের অধ্যাপক মেহেদী আহমেদ আনসারী, কায়েস জামান, ডিআইএফইর অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক জয়নাল আবেদীন, আরসিসির পরিচালক একেএম সালেহউদ্দিন, যুগ্ম মহাপরিদর্শক ফরিদ আহম্মেদ, বিজিএমইএর পরিচালক রেজওয়ান সেলিম এবং উপদেষ্টা লিয়াকত হোসেন উপস্থিত ছিলেন।