স্বাস্থ্য ভাতা না দিলে যুক্তরাষ্ট্রে ঠাঁই নেই: ট্রাম্প

নিউজ ডেস্ক: স্বাস্থ্য বিমার কথা মাথায় রেখে অভিবাসীদের প্রবেশাধিকার স্থগিত করে এক ঘোষণায় স্বাক্ষর করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ঘোষণা অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ৩০ দিনের মধ্যে যারা স্বাস্থ্য বিমার আওতায় আসবে না বা যাদের নিজস্ব স্বাস্থ্যসেবার ব্যয় বহন করার ক্ষমতা নেই, যুক্তরাষ্ট্রে তাদের জায়গা হবে না।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, গতকাল শুক্রবার হোয়াইট হাউসের জারি করা এক প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, নতুন এ সিদ্ধান্ত কারও আশ্রয়প্রার্থী বা শরণার্থী হওয়ার যোগ্যতাকে প্রভাবিত করবে না। পদক্ষেপটি ৩ নভেম্বর থেকে কার্যকর হবে বলে প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়েছে।

বৈধ ও অবৈধ অভিবাসনকে ট্রাম্প তাঁর রাজনৈতিক অ্যাজেন্ডার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত করেছেন। ট্রাম্প প্রশাসন গত মাসে জানায়, ২০২০ অর্থবছরে যুক্তরাষ্ট্র কেবল ১৮ হাজার শরণার্থীকে পুনর্বাসনের অনুমতি দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে। সাম্প্রতিক শরণার্থী কর্মসূচির ইতিহাসে এই সংখ্যা সর্বনিম্ন।

ঘোষণায় ট্রাম্প বলেন, ‘আমাদের নিজেদেরই স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থা অপ্রতুল, যত্নের অভাবে এ খাতে নানা চ্যালেঞ্জের সঙ্গে লড়তে হচ্ছে। এর মধ্যে হাজার হাজার বিদেশির স্বাস্থ্যসেবার ভার নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র নিজের বিপদই ডেকে আনছে।’ তিনি বলেন, এই স্থগিতাদেশ শুধু অভিবাসী ভিসা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে যাঁরা প্রবেশ করতে চাইছেন, তাঁদের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য।

ঘোষণায় বয়স্ক ব্যক্তিদের জন্য এবং কর্মজীবীদের ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানের দেওয়া মেডিকেয়ার কর্মসূচির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, ১৮ বছরের বেশি বয়সীরা দরিদ্র ভাতায় মেডিকেল কর্মসূচির আওতাভুক্ত হবেন না।