রংপুর-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোটা গ্রহণ চলছে

নিউজ ডেস্ক: রংপুর-৩ আসনের উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হলেও সকালে ভোটার উপস্থিতি কম লক্ষ্য করা গেছে। শনিবার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ করা হচ্ছে।

জাতীয় পার্টির প্রয়াত চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুতে এ আসন শূন্য হয়। সকালে ভোটগ্রহণের শুরুতে কেন্দ্রগুলোতে ভোটার উপস্থিতি কম লক্ষ্য করা গেছে। সকাল ৯টার পর তমিজ উদ্দিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১০ থেকে ১২জন ভোটারের উপস্থিতি দেখা গেছে।

ভোটের মাঠে রয়েছেন মহাজোট (জাতীয় পার্টির) প্রার্থী প্রয়াত এরশাদপুত্র রাহগির আল মাহি এরশাদ (সাদ), বিএনপির রিটা রহমান, স্বতন্ত্র হোসেন মকবুল শাহরিয়ার আসিফ, এনপিপির শফিউল আলম, গণফ্রন্টের কাজী মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ এবং খেলাফত মজলিসের তৌহিদুর রহমান মণ্ডল। তবে ৬ জন প্রার্থী মধ্যে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত দু’জন প্রার্থী তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। এর মধ্যে স্বতন্ত্র হোসেন মকবুল শাহরিয়ার আসিফ সকাল সাড়ে ৯টায় নগরীর সেনপাড়া তোজাম্মেল হোসেন মেমোরিয়াল শিশুমংগল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এবং খেলাফত মজলিসের প্রার্থী তৌহিদুর রহমান মণ্ডল রংপুর মডেল কলেজ কেন্দ্রে নিজের ভোট প্রদান করেন।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নির্বাচন থেকে জোটের কারণে প্রার্থী প্রত্যাহার করে নেওয়ায় এরশাদ পুত্রের মূল প্রতিদ্বন্দ্বী হচ্ছেন বিএনপির রিটা রহমান। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ১ লাখ ৪২ হাজার ৯২৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছিলেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন বিএনপি প্রার্থী রিটা রহমান। তিনি পেয়েছিলেন ৫৩ হাজার ৮৯ ভোট। ভোট পড়েছিল ৫২ দশমিক ৩১ শতাংশ।

রংপুর-৩ আসনটিতে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মতোই সম্পূর্ণভাবে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে ভোটগ্রহণ করা হচ্ছে। নির্বাচনে ১৭৫ জন প্রিজাইডিং কর্মকর্তা, ১ হাজার ২৩ জন সহকারী প্রিজাইডিং কর্মকর্তা ও ২ হাজার ৪৬ জন পোলিং কর্মকর্তা ভোটগ্রহণের দায়িত্ব পালন করছেন। গত সংসদ নির্বাচনে ভোটের ফল প্রকাশে বিলম্ব হলেও এবার সন্ধ্যা ছয়টার মধ্যে সব কেন্দ্রের ফলাফল প্রকাশের নির্দেশনা দিয়েছে ইসি বলে জানান রিটানিং অফিসার সাহাতাব উদ্দিন।

তিনি বলেন, ‘নির্বাচন নিয়ে কোনও ধরনের সহিংসতা বা অপ্রীতিকর ঘটনা প্রতিরোধে কমিশন সদা সতর্ক। একটি কন্ট্রোল সেন্টার খোলা হয়েছে, যেখান থেকে পুরো আসনের নির্বাচনি পরিস্থিতি সার্বক্ষণিক মনিটরিং করা হচ্ছে। কোনও কেন্দ্রে ভোটার কিংবা প্রার্থীদের এজেন্টকে ঢুকতে না দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেলে সে কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করে দেয়া হবে।’