কনটেইনার পরিবহনে আরেকটি রেকর্ড

নিউজ ডেস্ক:  এক বছর ধরে বন্দর দিয়ে কনটেইনার পরিবহন বাড়ার হার ৪ শতাংশের নিচে আটকে ছিল। এই ধারা থেকে বের হয়ে এবার নতুন রেকর্ড করল চট্টগ্রাম বন্দর। গত মাসে এই বন্দর দিয়ে সর্বোচ্চসংখ্যক কনটেইনার পরিবহন হয়েছে।

বন্দর কর্মকর্তারা জানান, গত মাসে ২ লাখ ৭২ হাজার একক কনটেইনার পরিবহন হয়, যা এ পর্যন্ত সর্বোচ্চ। এক বছর ধরে বন্দরে গড়ে প্রতি মাসে ২ লাখ ৩৩ হাজার কনটেইনার পরিবহন হয়। এ হিসাবে মাসভিত্তিক কনটেইনার পরিবহন বাড়ার হার প্রায় ১৭ শতাংশ।

কনটেইনার পরিবহনে এর আগে সর্বোচ্চ রেকর্ড ছিল গত বছরের নভেম্বরে। সে মাসে ২ লাখ ৫৬ হাজার কনটেইনার পরিবহন হয়েছিল—যা এখন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। কনটেইনার পরিবহনের সংখ্যা বাড়ার অর্থ হলো গত মাসে বন্দর দিয়ে আমদানি বেড়েছে। আবার রপ্তানির পরিমাণও বেড়েছে।

কনটেইনার পরিবহন বাড়ার কারণ সম্পর্কে বন্দরের পরিবহন বিভাগের পরিচালক এনামুল করিম বলেন, গত ১০ মাসে বন্দরে জাহাজ থেকে কনটেইনার ওঠানো–নামানোর দশটি গ্যান্ট্রি ক্রেন নতুন যুক্ত হয়েছে। কনটেইনার স্থানান্তরের আরও ছয়টি ক্রেন যুক্ত হয়েছে। কনটেইনার থেকে পণ্য খালাসের নতুন একটি চত্বর যুক্ত হয়েছে। আবার সেপ্টেম্বরে প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে মুক্ত ছিল। দেশে আমদানি–রপ্তানি বাড়ার পাশাপাশি বন্দর সুবিধা বাড়ায় রেকর্ডসংখ্যক কনটেইনার পরিবহন সম্ভব হয়েছে।

সমুদ্রপথে দেশে কনটেইনার পরিবহনের ৯৮ শতাংশই চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে আনা–নেওয়া হয়। জাহাজ থেকে কনটেইনার ওঠানো–নামানোর জন্য এ বন্দরে রয়েছে ১৩টি জেটি।

বন্দরের নিয়োজিত সাতটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এসব জেটি পরিচালনা করছে। প্রতিদিন এসব জেটিতে গড়ে ১১টি জাহাজ থেকে ৯ হাজার কনটেইনার ওঠানো–নামানো হয়।