রেনিটিডিনে ক্যান্সার উপাদান, বাংলাদেশে বিক্রি নিষিদ্ধ

নিউজ ডেস্ক : গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় বহুল ব্যবহৃদ ওষুধ রেনিটিডিন ক্যান্সার উপাদান থাকায় বাংলাদেশে বিক্রি বন্ধ ঘোষণা করেছে ওষুধ প্রশাসন। সেই সঙ্গে এর আমদানি ও রপ্তানিতেও নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। আজ রোববার রাজধানীর মহাখালীতে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের সভাকক্ষে বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতির নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, দেশের মানুষের স্বাস্থ্যসেবার কথা বিবেচনায় নিয়ে বাংলাদেশ শিল্প সমিতির নেতাদের সঙ্গে আলোচনা শেষে রেনিটিডিন ওষুধের কাঁচামাল আমদানি, উৎপাদন ও বিক্রির ওপর সাময়িক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

মাহবুবুর রহমান জানান, বর্তমানে বাংলাদেশের ৩১টি ওষুধ কোম্পানি প্রতিবেশী দেশ ভারত থেকে রেনিটিডিন ট্যাবলেটের কাঁচামাল আমদানি করে। তবে বিষয়টি জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট হওয়ায় বৈঠকে রেনিটিডিনের কাঁচামাল আমদানি নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এ বিষয়য়ে জাতীয় দৈনিকে আগামীকাল সোমবার গণবিজ্ঞপ্তি জারি হবে।

ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক জানান, বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতির নেতারা জনস্বাস্থ্যের কথা বিবেচনায় নিয়ে স্বপ্রণোদিতভাবে বাজার থেকে রেনিটিডিন প্রত্যাহার, নতুন করে কাঁচামাল আমদানি ও উৎপাদন না করার বিষয়ে সর্বসম্মত হন।

এই কর্মকর্তা আরও জানান, বৈঠকে জিএসকে কোম্পানির প্রতিনিধিও ছিল। তারাও বাজার থেকে রেনিটিডিন তুলে নেবে।

প্রসঙ্গত, গ্যাস্ট্রিকের চিকিৎসায় বহুল ব্যবহৃত রেনিটিডিন ট্যাবলেটে ক্যান্সার সৃষ্টিকারী উপাদান পাওয়ার কারণে বিশ্ববাজার থেকে ওষুধটি তুলে নেওয়া ঘোষণা দিয়েছে প্রস্তুতকারী ব্রিটিশ সংস্থা গ্ল্যাক্সো স্মিথ ক্লাইন (জিএসকে)। এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের বাজারেও এর বিক্রি নিষিদ্ধ করা হলো।