সৌদিতে হামলা নিয়ে ইরানকে দুষছে যুক্তরাষ্ট্র

নিউজ ডেস্ক:  সৌদি আরবের অন্যতম বড় দুইটি তেলক্ষেত্রে ড্রোন হামলার ঘটনায় ইরানের ওপর দোষ চাপিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

রোববার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এক টুইট বার্তায় এ দাবি করেন বলে বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

তিনি বলেন, বিশ্বের জ্বালানি সরবরাহের ওপর ইরান নজিরবিহীন হামলা চালিয়েছে। তেলের বাজারে সরবরাহ নিশ্চিত এবং এ আগ্রাসনের জন্যে ইরানকে জবাবদিহির আওতায় আনতে যুক্তরাষ্ট্র তার অংশীদার ও মিত্রদের সঙ্গে একসঙ্গে কাজ করবে।

ইরান সমর্থিত ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীদের আল মাসিরাহ টেলিভিশনের খবরে বলা হয়েছে, ওই তেলক্ষেত্রে ১০টি ড্রোনের অংশগ্রহণে বড়ো ধরনের হামলা চালানো হয়েছে।

ড্রোন হামলার ব্যাপারে ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীদের জড়িত থাকার প্রসঙ্গ উড়িয়ে দিয়েছেন পম্পেও। তিনি বলেন, হামলাকারীদের ইয়েমেন থেকে আসার কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

বিবিসি বলছে, সৌদি আরবের পূর্বাঞ্চলে আরামকো তেল ক্ষেত্রের গুরুত্বপূর্ণ তেল উৎপাদন কেন্দ্রে শনিবার ভোরে ড্রোন হামলার পর ঘন ধোঁয়া আকাশের দিকে উড়তে দেখা গেছে। ড্রোনের সাহায্যে এ তেল ক্ষেত্রে একাধিক বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।

এই হামলার পর সাময়িকভাবে তেল উৎপাদন বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ কারণে তেল উৎপাদন অর্ধেকে নেমে আসে। সৌদি আরব ড্রোন হামলার জবাব দিতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছে।

সৌদি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মানসুর আল তুর্কি বলেছেন, এ হামলায় কেউ হতাহত হয়নি। তবে তাৎক্ষণিকভাবে ক্ষতির পূর্ণাঙ্গ চিত্রও পাওয়া যায়নি।