প্রধানমন্ত্রীর ফোনে কাঁদলেন আফিফ

নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশের ক্রিকেটে নতুন সম্ভাবনার নাম আফিফ হোসেন ধ্রুব। এ তরুণের কাঁধে ভর করেই গতকাল শুক্রবার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে জিতে বাংলাদেশ। এ তরুণ তুর্কির খেলা দেখে বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা যেমন মুগ্ধ হয়েছেন, মুগ্ধ হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও। আফিফের খেলা দেখে ফোন দেন প্রধানমন্ত্রী; ফোন পেয়ে আবেগে কাঁদলেন আফিফ।

ত্রি-দেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে শুক্রবার জিম্বাবুয়ের মুখোমুখি হয় বাংলাদেশে। বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচে টাইগারদের সামনে ১৮ ওভারে ১৪৫ রানের লক্ষ্য ছুড়ে দেয় জিম্বাবুয়ে। দলের সিনিয়র খেলোয়াড়রা যখন একের পর এক ব্যর্থতায় গা ভাসাচ্ছিলেন, তখন খেলতে নামেন ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে নামা আফিফ। তাকে সঙ্গ দেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত।

এই দুজনের জুটি থেকে আসে ৮২ রান। আফিফ করেন ৫২ রান আর মোসাদ্দেক করেন ৩০ রান। তাদের রানে ভর করেই ২ বল হাতে রেখে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ যখন জয় উদযাপনে ব্যস্ত তখনই আফিফের জন্য আসে চমক। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এগিয়ে আসেন তার দিকে। বিসিবি সভাপতি খুশিতে উড়তে থাকা আফিফকে এগিয়ে দেন ফোন, আর তা কানে নিতেই চমকে যান তিনি।

ফোনের ওপারে কথা বলছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী তাকে অভিনন্দন জানালেন, যা তার বিশ্বাসই হচ্ছিল না।

প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে অভিনন্দন বার্তা পেয়ে আবেগে কেঁদেই ফেললেন আফিফ। মিরপুরের শেরে-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম ছাপিয়ে আফিফের সে কান্নার সাক্ষী হয়ে রইলো পুরো ক্রিকেট বিশ্ব।