এমএলএম একটি দেশের জন্য প্লাস পয়েন্ট: সাইফ শোভন

এমএলএম একটি দেশের জন্য প্লাস পয়েন্ট
সাইফ শোভন
মাল্টিলেভেল মর্কেটিং বা এমএলএম যাত্রা শুরু হয় ১৯৩৮ সালে। এই পদ্ধতির আবিষ্কার করেন, প্রফেসর ড. কাল রেইন বোর্গ। বানিজ্যিক ভাবে এমএলএম শুরু হয় “নিউট্রালাইট প্রডাক্ট ইনকরপোরেট এর মাধ্যমে ১৯৪০-৪১ সালে। এমএলএম নিয়ে মার্কিন সিনেটে ভোটাভুটি অনুষ্ঠিত হয় ১৯৫৮ সালে এবং এমএলএম জয়লাভ করে ১০ ভোটে। বিশ্বের সর্ববৃহৎ এমএলএম কোম্পানির নাম “এম্ওয়ে করপোরেশন”। যাদের ১৯৯৭ সাল থেকে ভারতে শাখা রয়েছে। বর্তমানে বিশ্বে এমএলএম কোম্পানীরসংখ্রা ১২ হাররেরও বেশি এবং ব্যাবসাকারী দেশের সংখ্যা ১৩০ টিরও বেশী দেশ। সবচেয়ে বেশী কোম্পানি কাজ করছে মালয়েশিয়াতে যার সংখ্যা ৮৫০এরও উপরে। সেখানে কার্যক্রম শুরু হয় ১৯৭৩ সালে এবং এ-সংক্রান্ত নীতিমালা প্রনীত হয় ১৯৯৩ সালে আ্যাক্ট ৫০০ নামে পরিচিত। বিশ্ববিখ্যাত “প্রেত্রোনাস টাওয়ার “ এমএলএম কোম্পনীর সম্পত্তি। বাংলাদেশে এমএলএম প্রথম শুরু হয়েছিল ১৯৯৬ সালে। বর্তমানে দেশে কোম্পানীর সংখ্যা ৪৩টি। বাংলাদেশে শীঘ্রই কার্যক্রম শুরু করতে যাচ্ছে বিশ্ববিখ্যাত কোম্পনী এমওয়ে কর্পোরেশন। প্রতি সপ্তাহে বিশ্বব্যপী এমএলএম এ গ্রাহক হন ৩০ লক্ষেরও অধিক। প্রতিবছর বিশ্বব্যাপি ডিষ্ট্রিবিউটর হয় ৪০ মিলিয়ন লোক। বিশ্বে প্রতিবছর ৭০০ বিলিয়ন বানিজ্যিক লেনদেনের মধ্যে এমএলএম এর মাধ্যমে সম্পাদিত হয় ১৫০ বিলিয়ন ডলার যা মোট লেনদেনের ২০ ভাগ। ২০০৩ সালে এমএলএম এর মাধ্যমে জাপানের বৈদেশীক বানিজ্য হয়েছে ৪ দশমিক ৫ বিলীয়ন। এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে বড় এমএলএম মার্কেট হচ্ছে চীন এবং ভারত। ২০০৪ সালের মধ্যে আমেরিকার এমএলএম ডিষ্ট্রিবিউটর সংখ্যা হবে ৩ কোটি। আমেরিকার প্রসাধনী ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পন্যের প্রায় ৩৩ শতাংশ সম্পাদিত হয়ে থাকে এমএলএম এর মাধ্যমে। নেটওয়ার্ক কোম্পানীগুলির নীতিমাল প্রনয়ন ও কার্য্যক্রম মনিটরের জন্য পরিচালিত প্রতিষ্ঠানের নাম এফটিসি বা ফেডারার ট্রেড করপোরেশন. এমএলএম এর নামে প্রতারনা ব্যবসা শুর করে পঞ্জিক্সি নামের এক ইতালীয় ব্যবসায়ী ১৯৪৬ সালে যা একটি জুয়া খেলে বা পিরামিড স্কীম নাম পরিচিত। বাংলাদেশেরও দু একটি কোম্পানি এরূপ প্রতারনা ব্যাবসার সংগে জরিত। যার ফলে আমাদের দেশে অনেকই এমএলএম সম্পর্কে ভুল ধারনা পোষণ করেন এবং প্রত্রপত্রিকার এমএলএম এর সম্পর্কে ভুল ধারনার অবতারনা করা হয়। দিল্লী ইউনিভার্সিটিতে এমএলএম এর উপর বাধ্যতামুলক ৬ মাসের কোর্স রয়েছে ম্যানেজমেন্টের ছাএদের জন্য। এবং এর উপর প্রতিষ্ঠানিক কোর্স রয়েছে ৫ বছর মেয়াদি। ঢাকায় থেকে দূরশিক্ষনের মাধ্যমে ১ বছরের ডিপ্লোমা করা যায় যার কোর্স ফি রয়েছে ৩ হাজার ইউএস ডলার। ওয়েব সাইট http://www.mlmu.com।। “এমএলএম “বিকাশের ৪ টি দশক হচ্ছে ১ম ১৯৩৮ – ৫৮, ২য় ১৯৬০-৮০, ৩য় ১৯৮০-২০০০ এবং ৪র্থ ২০০০-২০০৪ বা (বর্তমান পর্যন্ত)। এর উপর কোর্স চালু করার চিন্তাভাবনা রয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের। এবং এর উপর শীঘ্রই নীতিমিাল প্রনয়ন করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ সরকার। বাংলাদেশের গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী ৪৩ থেকে মাত্র ৪টি কোম্পানীকে সরকারী ভাবে স্বীকৃতি দিবে বলে শুনা যাচ্ছে। যার মধ্য রয়েছে ডেসটিনি ২০০০, BizNas.com, New way এবং আরেকটি কোম্পানী। ২০১০ সালের মধ্যে বিশ্বব্যাপী এমএলএম এর মাধ্যমে বানিজ্যের হার ধরা হয়েছে ৬ শতাংশ। এমএলএম বিষয়ক কয়েক আন্তর্জাতিক কোম্পানি হচ্ছে এমওয়ে করপোরেশন, ইউএসএ.এনএ, এনরিচ ইন্টারনেশনাল, এনএসএ ইন্টারনেশনাল, ন্যাচারাল ওয়ার্ল্ড ইত্যাদি. পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশী আয়ের পেশা হচ্ছে এমএলএম।

এটি হচ্ছে সুনিয়ন্ত্রিত এবং বিজ্ঞান সম্মত একটি আধুনিক উন্নতমানের নেটওয়ার্কিং ব্যাবসা। আন্তর্জতিক এমএলএম বিষয়ক ম্যাগজিন হচ্ছে “সাকসেস”, আপলাইন, ফরচুন, দ্যা নেটওয়ার্ক, এমএলএম ইনফরমেশন, এমএলএম ইনসাইডার, এবং এদেশীয় ম্যাগাজিন হচ্ছ “দ্যা ডেসটিনেশন”, দ্যা নিউওয়েবার্তা ইত্যাদি . আন্তর্জাতিক এমএলএম ব্যক্তিত্য মি.বিল ব্রিটযার একদিনের আয় হচ্ছে আড়ই লক্ষ ডলার। এমএলএম সংক্রকান্ত বিদেশী বই গুলির মধ্যে বিং দ্যা বেস্ট ইন এমএলএস -জন কেলএনস, দ্যা গ্রেটেস্ট অপারচুনেটি ইন হিস্টোরি-জস কেলএনস, দ্যা গ্রেটেস্ট নেটওয়াক ইন দ্যা ওয়ান্ড-জন মিলটন ফগ. দ্যা নেকস্ট ট্রিলিঅন ডিভড মরজেনঠু , থিংক নেটওয়ার্ক এবং গ্রো-রিচ-মেজর চন্দ্র মোহন । বিখ্যাত কয়েকটি ওয়েব সাইট হচ্ছে।www.mlm.com, www.mlmu.com, www.mlmuniversity.com, www.yahoo.mlm.com.

ইসলামী রীতিনীতির সাথে মাল্টিলেভেল মার্কেটিং এর কোন বিরোধ নেই। এমএলএম সংক্রন্ত বাংলা বই যেমন, তুমিও জিতবে-শিব খেরা, ধনী হতে ক’দিন লাগে-হার্বাট ক্যাশন, এমএলএম ইনফরমেশন-সাগর শাহরিয়ার, ইত্যাদি।
ইংরেজিতে কয়েকটি কথা হচ্ছে- Forget saying ‘NO’ and come fast to test the best – it’s MLM. Why you? Money will search you. No frustration, no crying, MLM is calling. Multi Level Marketing-A salvation way of middle class people. MLM- The mark of absolute time and money freedom. Have no money? Go for MLM and have efforts for quick business boom. Customer referral program-a way of excellence in earning. Network marketing -A smart addition in earning. At a loss in life struggle? be Free of worry—-Get MLM. Earning and Learning — More than excellent.

লেখক- সাবেক ছাত্রনেতা