উপসাগরে জাহাজ চলাচলের নিরাপত্তা মিশনে অস্ট্রেলিয়া

নিউজ ডেস্ক:    ইরানের সাথে চরম উত্তেজনার প্রেক্ষাপটে হরমুজ প্রণালী হয়ে চলাচল করা জাহাজের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে মার্কিন নেতৃত্বাধীন মিশনে অস্ট্রেলিয়া যোগ দেবে। বুধবার দেশটির প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন এ ঘোষণা দেন। খবর এএফপি’র।

মরিসন বলেন, অস্ট্রেলিয়া এ মিশনে ‘সীমিত’ অবদান রাখবে। আর এর অংশ হিসেবে সিডনি এ মিশনে একটি রণতরী, সমুদ্র পর্যবেক্ষণের একটি পি৮ বিমান ও প্রয়োজনীয় স্টাফ পাঠাবে। এ মিশনে ব্রিটেন ও বাহরাইনের বাহিনীও যোগ দেবে।

বিগত কয়েক মাসে জাহাজ চলাচলের গুরুত্বপূর্ণ এ পথে বিভিন্ন ঘটনায় নিরাপত্তার ব্যাপারে উদ্বেগ প্রকাশ করে মরিসন বলেন, এক্ষেত্রে ‘আমরা সীমিত অবদান রাখবো। আর এটি রাখবো পরিস্থিতি অনুযায়ী।’

পররাষ্ট্র ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রীদ্বয়ের সঙ্গে দেয়া এক যৌথ বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘অস্থিতিশীলতামূলক কর্মকান্ড এ অঞ্চলে অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন স্বার্থের জন্য একটি বড় হুমকি।’

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক ইস্পার এ মাসের গোড়ার দিকে সিডনি সফরকালে কৌশলগত দিক থেকে গুরুত্বপূর্ণ এ জলপথে টহল দিতে অস্ট্রেলিয়ার সহায়তার প্রশংসা করেন।

ইরান ও পশ্চিমা ক্ষমতাধর দেশ বিশেষ করে ব্রিটেন ও যুক্তরাষ্ট্রের কারণে গুরুত্বপূর্ণ এ উপসাগর চ্যানেলে জাহাজ জব্দসহ বিভিন্ন ঘটনার পর এমন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়।

প্রতিরক্ষামন্ত্রী লিন্ডা রেনল্ডস জানান, অস্ট্রেলিয়ার সামরিক স্টাফ আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে বাহরাইনে এ নিরাপত্তা অভিযানের সদরদপ্তরে যোগ দেবে।