কমরেড ফিদেল ক্যাস্ত্রোর জন্মদিন

নিউজ ডেস্ক:   পৃথিবীতে মাঝে মাঝে কিছু মানুষ জন্ম নেয়, যাঁরা নিজ চেষ্টা, প্রতিভা, কর্মের দ্বারা মহানায়ক, মহান ব্যক্তিত্বে পরিণত হন, তাঁদেরই একজন কমরেড ফিদেল ক্যাস্ত্রো। তিনি ১৯২৬ সালে ১৩ আগস্ট কিউবার বিরানে জন্মগ্রহণ করেন। হাভানা বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন শাস্ত্র নিয়ে পড়া অবস্থায় তিনি ছাত্র আন্দোলনে জড়িয়ে পড়েন ও ছাত্র সংসদের নেতা নির্বাচিত হন।
ছাত্রজীবন শেষে রাজনীতিতে জড়ান, তখন কিউবাতে কমিউনিস্ট পার্টি ছিল, কিন্তু কিউবান কমিউনিস্ট পার্টিতে যোগ না দিয়ে তিনি কিউবান পিপলস পার্টিতে যোগ দেন।

১৯৫২ সালে কিউবার জাতীয় নির্বাচনে ফিদেল পিপলস পার্টির প্রার্থি হিসাবে নির্বাচনে অংশ নেন। তখনকার সময় মার্কিন সাম্রাজ্যবাদ ল্যাটিন আমেরিকার অর্থ- সম্পদ আত্মসাৎ, ল্যাটিন আমেরিকার জনগণকে শাসন শোষণ লুণ্ঠন নিপীড়ন চালাত, ল্যাটিন আমেরিকার দেশগুলোকে মার্কিনের তাবেদার রাষ্ট্র বানানো, তাদের দাবিয়ে রাখতে অপচেষ্টায় লিপ্ত ছিল।একারণে ল্যাটিন আমেরিকার বিভিন্ন দেশ জনগণ অতীত থেকেই মার্কিন সাম্রাজ্যবাদ ও তাদের দালালদের বিরুদ্ধে লড়াই সংগ্রাম করে আসছিল।ল্যাটিন আমেরিকার বিভিন্ন দেশ জাতিকে মার্কিন সাম্রাজ্যবাদ ও তার দালালদের শাসন শোষণ লুণ্ঠন নিপীড়নে জনগণের জাতীয় সংগ্রাম ও শ্রেণীসংগ্রাম এক সূত্রে গ্রথিত হয়ে মার্কিন সাম্রাজ্যবাদ ও তার দালাল সরকার গুলোর বিরুদ্ধে লড়াই সংগ্রামে পরিনত হয়।তখন কিউবাতেও জাতীয় সংগ্রাম ও শোষণ মুক্তির সংগ্রাম -অবস্থা বিরাজ করছিল।

১৯৫২ সালে ১০ মার্চ মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের সমর্থন নিয়ে একনায়ক বাতিস্তা কিউবার নির্বাচিত সরকারকে হঠায়ে রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করে এবং সংবিধান বাতিল করে। মার্কিনের মদদে বাতিস্তা সরকার অতিমাত্রায় কিউবার জনগণকে শোষণ, লুণ্ঠন, নির্যাতন করতে থাকে, তাতে অতিষ্ঠ হয়ে বাতিস্তা সরকারের প্রতি আস্তা হারিয়ে জনগণ প্রতিবাদী হয়ে উঠে। জনগণের দুঃখ কষ্ট ক্ষোভ মার্কিন সাম্রাজ্যবাদ, বাতিস্তা সরকার বিরোধী আন্দোলনে রূপ নিতে থাকে। সেসময় ফিদেল ক্যাস্ট্রো বাতিস্তা সরকারের বিরুদ্ধে লড়াই সংগ্রাম করার জন্য মনঃস্থির করে তিনি ১৩১ জন বিপ্লবী নিয়া একটি বাহিনী গঠন করেন।

১৯৫৩ সালে ২৬ জুলাই ফিদেল বাহিনী কিউবার ২য় বৃহত্তম সামরিক ঘাঁটি মনকাডা দুর্গ আক্রমণ করে এবং সান্টিয়াগো শহরে বিপ্লবের কর্মসূচি ঘোষণা করেন, তখন তাঁর বাহিনী ব্যর্থ হয় , যুদ্ধস্থলে ৬ জন বিপ্লবী যোদ্ধা শহীদ হন,৪৯ জনকে বন্দি অবস্থায় অমানসিক নির্যাতন করে হত্যা করে। ফিদেল ক্যাস্ট্রো সহ অনেকেই বন্দি হন, ফিদেলকে ১৫ বছর কারাদণ্ড দেয়া হয়। বাতিস্তা বিরোধী গণ আন্দোলনে ২ বছর পর ফিদেল জেল থেকে মুক্তি পান। ফিদেল তার ববিপ্লবী বন্ধুদের নিয়ে মেক্সিকো যান।সেখানে বিপ্লবী সমাজতন্ত্রী চে গুয়েভারা ফিদেলের সাথে সাক্ষাৎ করে, তাঁরা কিউবার বিপ্লবে ঐক্যবদ্ধ ভাবে লড়াই সংগ্রাম করার সিদ্ধান্ত নেন। তখনকার সময় কিউবার কমিউনিস্ট পার্টিও বাতিস্তা সরকারের বিরুদ্ধে তীব্র আন্দোলন গড়ে তুলেছিল।

তখন ১৯৫৬ সালে ২৫ নবেম্বর ফিদেল কাস্ত্রো ও চে গুয়েভারা ৮২ জন বিপ্লবী যোদ্ধা সহ ‘গ্রানামা’ নামক নৌকায় করে কিউবা রওনা হন। পরিকল্পনা ছিল কিউবার সিয়েরা মায়েস্ত্রার পর্বতমালায় ঘাঁটি গড়বে। বতিস্তা সরকার ফিদেল বাহিনীর আগমন টের পেয়ে ফিদেল বাহিনীর উপর বিমান ও সামরিক হামলা ও আক্রমণ চালায়, এতে বিপ্লবী বাহিনীর কয়েকজন নিহত হয়, বাকিরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। পরে আবার বিপ্লবীরা একত্র হয়ে সিয়েরা মায়স্ত্রার পর্বতমালায় আশ্রয় নিয়ে ফিদেল ও চে এর নেতৃত্বে গেরিলা যুদ্ধ আরম্ভ করেন। কিউবার জনগণ স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে ফিদেল কাস্ত্রো ও চে গুয়েভারার নেতৃত্বে বিপ্লবীদের সশস্ত্র লড়াই সংগ্রামকে সমর্থন করেন ও বিপ্লবীদের সাথে ঐক্যবদ্ধ হয়ে বাতিস্তা সরকারের পতনে এগিয়ে আসেন।

১৯৫৯ সালের জানুয়ারি মাসে বিপ্লবী বাহিনী হাভানা শহর দখল করে বিপ্লবী সরকার গঠন করে। ১ম বিপ্লবী সরকারে ফিদেল ও বিপ্লবী বাহিনীর সমর্থন নিয়ে বিপ্লবী সরকারে প্রেসিডেন্ট হন ম্যানুয়েল উরুতিয়া, প্রধানমন্ত্রী হন হোসো মিরো কর্দানো, ফিদেল যুদ্ধ মন্ত্রীর দায়িত্ব নেন। ১ম বিপ্লবী সরকারের প্রধানমন্ত্রী হোসে মিরো ভূমি সংস্কার ও সমাজ সংস্কার মূলক কাজে বিরোধিতা ও পদত্যাগ করায় ১৯৫৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে ফিদেল ক্যাস্ট্রো কে প্রধানমন্ত্রী করা হয়।তখনকার সময় বিপ্লবী সংস্কার কার্যক্রমে বিরোধিতা করায়, গণ আন্দোলনে ১ম প্রেসিডেন্ট পদত্যাগ করতে বাধ্যহন এবং অন্য একজনকে প্রেসিডেন্ট করা হয়, ফিদেল প্রধানমন্ত্রী থাকেন। সেসময় মার্কিন সাম্রাজ্যবাদ কিউবার বিপ্লবকে নস্যাৎ করার জন্য বহু অপচেষ্টা চক্রান্ত ষড়যন্ত্র চালিয়ে যেতে থাকে, কিউবার উপর হামলা চালায়। কিন্তু মার্কিন সাম্রাজ্যবাদ সফল হতে পারেনি। ফিদেল- বিপ্লবীরা মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের হামলার দাঁতভাঙা জবাব দেয়।

ফিদেল কাস্ত্রো, চে গুয়েভারা সহ কিউবার সাম্যবাদী, বাম নেতৃবৃন্দ সেদেশের বিপ্লবী পার্টিগুলোকে ঐক্যবদ্ধ করার জন্য পদক্ষেপ নেয়। তাঁরা ঐক্যবদ্ধ ভাবে ১৯৬২ সালে ইউনাইটেড পার্টি অব সোস্যালিস্ট রিভিলিউশন গঠন করেন এবং এর ধারাবাহিকতায় ১৯৬৫ সালে ঐক্যবদ্ধ ভাবে নতুন করে কিউবার কমিউনিস্ট পার্টি গঠন করেন এবং ফিদেল ক্যাস্ট্রোকে ঐক্যবদ্ধ কমিউনিস্ট পার্টির ফ্রাস্ট সেক্রেটারি নির্বাচিত করা হয়।পরবর্তিতে ১১৯৭৫ সালে কিউবার নতুন সংবিধান রচিত হওয়ার পর ফিদেল ক্যাস্ট্রোকে কিউবার প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করা হয়। ২০০৬ সালে তিনি অবসর নেন।২০১৬ সালে ২৫ নবেম্বর তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মার্কসবাদ -বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্র ও সাম্যবাদ কায়েমের লক্ষ্যে রাশিয়া,চীন, ভিয়েতনাম, উত্তর কোরিয়া সহ বিশ্বের দেশে দেশে যেভাবে বিপ্লব সংঘটিত হয়েছিল, কিউবার বিপ্লব তা থেকে ভিন্ন কৌশলে – ফিদেল প্রথমে কমিউনিস্ট পার্টিতে যোগ না দিয়ে পিপলস পার্টিতে যোগ দন, পিপলস পার্টির হয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ,পরে গেরিলা বাহিনী গঠন, ১৯৫৯ সালে বিপ্লবের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল, ‘৬২ সালে ইউনাইটেড পার্টি অব সোস্যালিস্ট রিভিলিউশন গঠন,, ‘৬৫ সালে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কিউবার কমিউনিস্ট পার্টি গঠন,মার্কসবাদী রাজনীতিতে এক উল্লেখযোগ্য সংযোজন। কিউবার এ- বিপ্লবী ক্রিয়া প্রতিক্রিয়া, অন্যান্য দেশের বিপ্লবের ধরনের ভিন্নতা রয়েছে। তখনকার সময় মার্কিন সাম্রাজ্যবাদ, একনায়ক বাস্তিতা সরকার বিরোধী লড়াই সংগ্রামে মেহনতি জনতার দেশপ্রেম, মুক্তির তীব্র ইচ্ছা ও আকাঙ্ক্ষা, লড়াই এর মানসিকতা, তাঁদেরকে বিপ্লবী পরিবর্তনে সম্পৃক্ত করে এবং ফিদেল ক্যাস্ট্রো- র নেতৃত্বে মেহনতি জনতা লড়াই সংগ্রামে অংশ নেয় ও বিপ্লবের মাধ্যমে বাতিস্তা সরকারের পতন ঘটান।

একজন দেশপ্রেমিক সংগ্রামী, গেরিলা বিপ্লবী কমিউনিস্ট ফিদেল ক্যাস্ট্রো , যাঁর নাম কিউবা সহ বিশ্বের মেহনতি মানুষ, কমিউনিস্টদের মাঝে তাঁর কীর্তি অক্ষয় হয়ে থাকবে। বিশ্বের প্রধান সাম্রাজ্যবাদ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নাকের ডগায় অবস্থান করে ১৯৫৯ সাল থেকে ২০১৮ সাল, আজ পর্যন্ত সাম্রাজ্যবাদের চক্রান্ত ষড়যন্ত্র, নানামুখী চাপ, অবরোধ এর মধ্য দিয়ে ফিদেল কাস্ত্রো,কিউবার কমিউনিস্ট পার্টি ও নেতৃত্ব কমিউনিস্ট আদর্শ ধারন করেই টিকে আছে।

মার্কিন সাম্রাজ্যবাদ ৬৩৮ বার ফিদেলকে হত্যা করতে চেয়েছিল, কিউবার কমিউনিস্ট পার্টিকে ধ্বংশ করতে চেয়েছিল, কিন্তু পারেনি। ফিদেল মার্কিন ও তার দালালদের বিরুদ্ধে জনগণের জাতীয় সেন্টিমেন্ট, শোষিত নিপীড়িত জনগণের মনের ভাষা পড়তে ও বুঝতে পেরেছিলেন। শোষিত নিপীড়িত জনগণের সাথে একত্ব হয়ে মার্কিন সাম্রাজ্যবাদ ও তার দালাল বাতিস্তা সরকারের বিরুদ্ধে কিউবার কমিউনিস্ট – বাম- দেশপ্রেমিক জাতীয়তাবাদীদের নিয়ে লড়াই সংগ্রামে অগ্রসর হওয়া, শোষিত নিপীড়িত জনগণে আকাঙ্ক্ষা ও শোষণমুক্তির চেতনাকে আত্মিক ভাবে ধারণ করে ও বিপ্লবী লড়াই সংগ্রামের মধ্য দিয়ে ফিদেল ও তাঁর বিপ্লবী টিম নিজেরাই বিপ্লবী কমিউনিস্টে পরিণত হয়।

মার্কিন সাম্রাজ্যবাদ ও তার দালাল বাতিস্তা সরকার বিরোধী লড়াই সংগ্রামে বিপ্লবী নেতৃত্বে জনগণের মজবুত ভিত্তি গড়ে উঠায় জাতীয় সংগ্রাম ও শ্রেণীসংগ্রাম এক সূত্রে গ্রথিত হয়ে যে বিপ্লবী আন্দোনের জন্ম নেয়, তা শোষক সুবিধাবাদী লুটেরা শ্রেণীর করায়ত্ত না হয়ে সত্যিকার বিপ্লবীদের হাতে নেতৃত্ব থাকায় বিপ্লবের সুফল শোষক লুটেরা শ্রেণী হাইজাক করতে পারেনি। পিপলস পার্টি হয়ে লড়াই সংগ্রামে বিপ্লবী পরিবর্তনের ধারাবাহিকতায় ফিদেল ও তাঁর বিপ্লবী সংগঠনের কমরেডরা শোষক লুটেরা শ্রেণীর ধারক বাহক না হয়ে সত্যিকার বিপ্লবী কমিউনিস্টে পরিণত হন।ফলে কিউবার বিপ্লব- বিপ্লবীরা পথ হারায়নি, কিউবা লুটেরা স্বর্গরাজ্যে পরিণত হয়নি।

ফিদেলের কিউবায়- যেখানে প্রত্যেক নাগরিকের একমাসের রেশন –
১০ কেজি চাল
৬ কেজি সাদা চিনি
২ কেজি লাল চিনি
২৫০ মিলি রান্নার তৈল
১২ টি ডিম
১ প্যাকেট কফি
৬ কেজি মাংস
প্রতিদিন একটি করে বড় রুটি
প্রতি ৩ মাসে ১ ব্যাগ লবন
গর্ভবতী মহিলা এবং ৭ বছর বয়সের নিছে শিশুর জন্য
প্রতিদিন ১ বতল দুধ
অসুস্থ রোগীদের চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী পুষ্টিকর খাদ্য।
পুরো মাসের রেশনের জন্য প্রত্যেক নাগরিককে দিতে হয় ২ ডলারের কম অর্থাৎ প্রায় ১৫০ টাকা।

কিউবা আজ শিক্ষা চিকিৎসায় অনেক দুর অগ্রসর।
পৃথিবীতে কিউবায় রয়েছে উৎকৃষ্ট উন্নততর চিকিৎসা ব্যবস্থা।
প্রতি ১০০ পরিবারের জন্য রয়েছে চিকিৎসা টিম।
এতে রাষ্টপ্রধান সহ প্রত্যেক নাগরিকের জন্য রয়েছে সম চিকিৎসা সেবা।

এমনিতর সমাজতান্ত্রিক দেশ কিউবা।অদ্যাবধি কিউবার কমিউনিস্ট পার্টি জনগণ বিশ্বের সাম্রাজ্যবাদী মোড়ল মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের নাকের ডগায় মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে।শত ষড়যন্ত্র অবরোধেও টিকে আছে ফিদেল কাস্ট্রোর কিউবা।

ফিদেল একটি বিপ্লবী প্রতীক, একজন সফল কমিউনিস্ট, সফল রাষ্ট্রনায়ক, মেহনতি মানুষের প্রকৃত বন্ধু,বিশ্বের মুক্তিকামী মানুষের নেতা ও শিক্ষক, আজকে ফিদেল ক্যাস্ট্রোর জন্মদিনে তাঁকে জানাই বিনম্র শ্রদ্ধা ও লাল সালাম।

সূত্র: সংগ্রহ করা ।