কাশ্মীর নিয়ে ট্রাম্পের মন্তব্যে নতুন বিতর্ক

নিউজ ডেস্ক:    হোয়াইট হাউসের ওভাল অফিসে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে বৈঠকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দাবি করেছেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তাঁকে কাশ্মীর সমস্যার সমাধানে মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা পালন করতে আহ্বান জানিয়েছেন। ট্রাম্পের বক্তব্য, ‘আমাকে দিয়ে যদি সত্যিই হয়, তা হলে মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা নিতে আপত্তি নেই আমার।’ কিন্তু ভারত বলছে এমন কোন প্রস্তাব ট্রাম্পকে দেয়ার প্রশ্নই আসে না।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘‘কয়েক সপ্তাহ আগেই প্রধানমন্ত্রী মোদীর সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা হচ্ছিল। উনি আমাকে জিজ্ঞাসা করেন, আপনি মধ্যস্থতা করবেন? আমি জিজ্ঞাসা করি কোন বিষয়ে? তখনই উনি কাশ্মীরের কথা বলেন।’

ট্রাম্পের এই মন্তব্যে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে ভারতে। জম্মু ও কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন। আরেক প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লার টুইট– ‘এ বার কি তবে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে মিথ্যেবাদী বলবে ভারত সরকার নাকি আড়ালে আবডালে কাশ্মীর সমস্যা নিয়ে তৃতীয় পক্ষের হস্তক্ষেপের ব্যাপারে তাদের অবস্থান বদলে গিয়েছে?’

তবে পরে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রবীশ কুমার অবশ্য সাফ জানিয়ে দেন, এ রকম কোনও আহ্বান প্রধানমন্ত্রী মোদী ট্রাম্পকে করেননি। বিরোধী দল কংগ্রেসের সাংসদ শশী থারুর টুইট করেন, ‘‘আমার মনে হয় ট্রাম্প ভালো করেই জানেন উনি ঠিক কী নিয়ে কথা বলছেন। উনি হয়তো মোদির বক্তব্য বুঝতে পারেননি।’’

ভারত যা-ই ভাবুক না কেন, পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রী অবশ্য সাদরে গ্রহণ করেছেন এই প্রস্তাব। ইমরান বলেন, ‘যদি আপনি সত্যিই মধ্যস্থতা করতে পারেন, তা হলে কাশ্মীরের কোটি কোটি বাসিন্দার শুভকামনা, প্রার্থনা ও শুভেচ্ছা আপনার জন্যই থাকবে।’

আরও পড়ুনঃ বাড্ডায় নারীকে পিটিয়ে হত্যা: তিনজন ৪ দিনের রিমান্ডে

জবাবে ট্রাম্প বলেন, ‘আমার মনে হয়, ভারতও কাশ্মীর সমস্যার সমাধান চায়। আপনিও চান। আমি যদি এতে মধ্যস্থতা করতে পারি, তা হলে সত্যি খুশি হব। ভারতের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক খুবই ভাল। আপনাদের সঙ্গে ভারতের টানাপোড়েন রয়েছে। মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। আমার মনে হয় আমরা বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করলে সুষ্ঠু পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে।’

কংগ্রেসের সদ্য সাবেক সভাপতি রাহুল গান্ধী বলেন, ‘মোদিকে অবশ্যই স্পষ্ট করতে হবে তিনি ট্রাম্পকে ঠিক কী বলে এসেছেন।’