সূচকের ব্যাপক পতনের মধ্য দিয়ে চলছে লেনদেন

নিউজ ডেস্ক:    সূচকের ব্যাপক পতনের মধ্য দিয়েই সোমবার সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসের লেনদেন চলছে দেশের পুঁজিবাজারে। এদিন লেনদেন হওয়া বেশিরভাগ শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের দরপতনের প্রভাবে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সবগুলো সূচকেই বড় পতন লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় দিনের লেনদেন শুরুর পর প্রথম ঘণ্টাতেই ডিএসই ও সিএসইর সবগুলো সূচকে নিম্নমুখী প্রবণতা দেখা যাচ্ছে। এর মধ্যে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স কমে গেছে প্রায় ১০০ পয়েন্ট। আর সূচকটিও নেমে এসেছে ৫ হাজার পয়েন্টের নিচে।

এর আগে রোববার সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসেও সূচকের ব্যাপক পতন হয়। ওইদিন ডিএসইএক্স প্রায় ৯৭ পয়েন্ট হারিয়ে ৫ হাজার ৩৩ পয়েন্টে নামে। সূচকের ওই অবস্থান ২০১৬ সালের ২৭ ডিসেম্বর বা আড়াই বছরেরও বেশি সময়ের মধ্যে সর্বনিম্ন। ২০১৮ সালের ৪ ফেব্রুয়ারির পর একদিনে সূচকের এত বড় পতন আর হয়নি। তবে সোমবার প্রথম ঘণ্টার লেনদেন শেষে তা ছাড়িয়ে যাওয়ার ইঙ্গিতই মিলছে।

সোমবার প্রথম ঘন্টায় ডিএসইতে ৩৪৮টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে ২৩টির দর বেড়ে ও ৩১০টির দর কমে লেনদেন হয়েছে। আর ১৫টি লেনদেন হয়েছে আগের দিনে দরে।

প্রথম ঘণ্টায় বেশির ভাগ শেয়ারের দরপতনের প্রভাবে ডিএসইর সবগুলো সূচকেই ব্যাপক পতন লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সকাল সাড়ে ১১টায় ডিএসইএক্স সূচক আগের দিনের চেয়ে ১০০ পয়েন্ট কমে ৪ হাজার ৯৩৩ পয়েন্টে নেমে এসেছে। এছাড়া ডিএসইএস সূচক ২২ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ১৩৫ পয়েন্টে ও ডিএসই৩০ সূচক ৩২ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৭৬৭ পয়েন্টে নেমে এসেছে। এ সময় পর্যন্ত ডিএসইতে প্রায় ১৪৬ কোটি টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড কেনাবেচা হয়েছে।

এদিকে ডিএসইর মতো সিএসইতেও সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসে সোমবার বেশির ভাগ শেয়ারের দরপতনের মধ্য দিয়ে লেনদেন চলছে। প্রথম ঘন্টায় এই স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেন হওয়া ২১৪টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে ১৫টির দর বেড়ে ও ১৯১টির দর কমে লেনদেন হয়েছে। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৮টির দর।

বেশিরভাগ শেয়ারের দরপতনের প্রভাবে ডিএসইর মতো সিএসইর সবগুলো সূচকেও বড় ধরনের পতন লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সিএসই৫০ সূচক আগের দিনে চেয়ে ১৫ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ১২৩ পয়েন্টে, সিএসই৩০ সূচক ১৬১ পয়েন্ট কমে ১৩ হাজার ৫৩৮ পয়েন্টে, সিএসসিএক্স সূচক ১৭২ পয়েন্ট কমে ৯ হাজার ২০০ পয়েন্টে, সিএএসপিআই সূচক ২৯৮ পয়েন্ট কমে ১৫ হাজার ১২২ পয়েন্টে, সিএসআই সূচক ১৬ পয়েন্ট কমে ৯৮৬ পয়েন্টে নেমে এসেছে। এ সময় পর্যন্ত সিএসইতে প্রায় সাড়ে ৪ কোটি টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড কেনাবেচা হয়েছে।