ডিজিটালাইজেশনে দ্রুত এগিয়েছে বাংলাদেশ : জয়

নিউজ ডেস্ক:   দেশকে দ্রুত অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির সোপানে নিয়ে যেতে, দেশের পুরনো আইন-কানুনে পরিবর্তন আনার পাশাপাশি মানসিকতারও পরিবর্তন আনতে হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। তিনি বলেন, বাংলাদেশ ডিজিটালাইজেশনে যেভাবে এগিয়েছে, কোনো দেশই এত দ্রুত এগিয়ে যায়নি।

বুধবার বেলা ১১টায় বঙ্গবন্ধু চীন মৈত্রী সম্মেলন কেন্দ্রে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ : সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি’-শীর্ষক কর্মশালায় প্রধান আলোচক হিসেবে জয় এসব বলেন।

সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, ‘দেশকে দ্রুত অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির সোপানে নিয়ে যেতে দেশের পুরনো আইন-কানুনে পরিবর্তন আনার পাশাপাশি মানসিকতার পরিবর্তন আনতে হবে।‘

বাংলাদেশে দ্রুত ডিজিটালাইজড করার কার্যক্রম এগিয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘২০০৮ সালে আমরা যখন ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার কথা বলি, তখন দেশে কোনো কিছুই ডিজিটাল ছিল না। ১০ বছরে দেশ ডিজিটালাইজেশনে যেভাবে এগিয়েছে, কোনো দেশই এত দ্রুত এগিয়ে যায়নি।’

প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি উপদেষ্টা বলেন, ‘পৃথিবীর অন্যান্য দেশের সাথে একযোগে বাংলাদেশে ফাইভ-জি নেটওয়ার্ক সেবা চালু হবে। সরকার ইতিমধ্যেই গভর্মেন্ট সেবা চালু করেছে।‘

বিভিন্ন প্রকল্প অনুমোদন বাস্তবায়ন এবং তদারকিতে ডিজিটাল পদ্ধতি অনুসরণ করতে সংসদ সদস্যদের প্রতিও আহ্বান জানান সজীব ওয়াজেদ জয়।সরকারি বিভিন্ন সেবা ডিজিটালাইজড করার মাধ্যমে দুর্নীতির সুযোগ কমে আসছে।

‘কাউকে অনুকরণ করে নয়, নিত্য নতুন উদ্ভাবনের মধ্য দিয়েই ডিজিটাল বাংলাদেশ বিশ্বের কাছে নিজেদের আত্মপরিচয় তুলে ধরবে‘ বলেও জানান জয়।

এ সময় টেলিকমিউনিকেশন পলিসি নতুনভাবে করারও ঘোষণা দেন তিনি। তরুণ প্রজন্মকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করলে তারাই বাংলাদেশকে বিশ্বের কাছে তুলে ধরবে। তাই তরুণ প্রজন্মের জন্য যথাযথ শিক্ষার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা।

এই কর্মশালায় সংসদ সদস্যরাও অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরী।