আইন মানে না পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের চেয়ারম্যান

সুমন দত্ত : পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকের বিরুদ্ধে আইন ও বিধি ভঙ্গের অভিযোগ এনেছে ব্যাংকটির বর্তমান কর্মচারী ও কর্মকর্তারা। শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এ নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন তারা। নিজেদের চাকরি স্থায়ীকরণসহ নানা দাবি পুরনের কথা বলেন তারা। এজন্য প্রধানমন্ত্রী, স্থানীয় সরকার , পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রীর ও সচিবের হস্তক্ষেপ চেয়েছেন তারা।

সমিতির পক্ষে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মো. জসিম উদ্দিন।

তিনি বলেন, সরকার দারিদ্র বিমোচনের লক্ষে আমার বাড়ি আমার খামার প্রকল্প চালু করেছিল। এ প্রকল্প বাস্তবায়নে সরকার ৮০০০ কর্মচারী ও কর্মকর্তা নিয়োগ দেয়। পরে ২০১৪ সালে এই প্রকল্প স্থায়ী করনের লক্ষ্যে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক আইন পাশ করা হয়। এই আইনে বলা ছিল যারা এই প্রকল্পের পুরানো কর্মকর্তা কর্মচারী তাদের স্থায়ী নিয়োগ দিয়ে পরে অন্য জায়গা থেকে লোক নেয়া হবে। কিন্তু কিছু কুচক্রী এসব না মেনে বিভিন্ন এনজিও ও ব্যাংক থেকে লোক নিয়োগ দিচ্ছে। এতে প্রকল্পের ৮ বছর ধরে চাকরি করা ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকে ৩ বছর ধরে কাজ করা কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। মহামান্য হাইকোর্ট নতুন কর্মকর্তা কর্মচারী নিয়োগে নিষেধাজ্ঞা জারি করা স্বত্বেও সম্প্রতি ব্যাংকটি ১৪৯ জনকে বিভিন্ন পদে নিয়োগ দেয়। এর আগে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ ৪৮৫ জনকে ক্যাশ সহকারী পদে নিয়োগ দেয় পুরানো কর্মকর্তা কর্মচারীদের বাদ দিয়ে। আর এসব নিয়োগে ঘুষের অভিযোগ আছে বলে জানা যায়। বিষয়টি আরও পরিষ্কার হয় যখন ব্যাংকের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা তোফায়েল আহমেদ নিয়োগ বানিজ্যে ঘুষের ৪০ লক্ষ টাকাসহ পুলিশের হাতে গ্রেফতার হন।

তিনি আরও বলেন, আমাদের চাকরি স্থায়ী হয়নি। আমার বাড়ি আমার খামার প্রকল্পের পুরো জনবলকে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকে নিয়োগ দিয়ে পরিপত্র জারি করা হউক। সকল পদে কর্মকর্তা কর্মচারীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে অতিদ্রুত পদোন্নতির ব্যবস্থা করা হউক। হাইকোর্টের আদেশ অমান্য করে যাদের নিয়োগ দেয়া হয়েছে, তাদের অবৈধ ঘোষণা করা হউক। যারা এসব নিয়ে আন্দোলন করছে তাদেরকে হয়রানি যেন করা না হয়।

ঢাকানিউজ২৪ডটকম