পণ্যবাহী ট্রেন যাবে ভারত, নেপাল ও ভুটানে: রেলপথ মন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক:  রেলপথ মন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, ‘আগামী ২০২২ সালে প্রকল্প মেয়াদের মধ্যেই কাজ শেষে ওই বছরেই মংলা-খুলনা রেলপথ চালু হবে। মংলা থেকে সরাসরি পণ্য নিয়ে ট্রেন যাবে ভারত, নেপাল ও ভুটানে।’ বৃহস্পতিবার দুপুরে নির্মাণাধীন খুলনা-মংলা রেল প্রকল্পের সুযোগ সুবিধার বিষয়ে মংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের রেস্ট হাউসে খুলনার রেলপথ বিভাগ ও মংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকের তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘দেশের দ্বিতীয় সমুদ্র বন্দর মংলা সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য খুলনা থেকে মংলা পর্যন্ত রেল লাইন স্থাপনের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলেছে। প্রকল্প মেয়াদের মধ্যেই রেল চালু হবে। এই রেল পথ দিয়ে যাত্রী পরিবহণসহ মংলা বন্দরের মালামাল পরিবহণ করা হবে।

এছাড়া উত্তর অঞ্চলের পঞ্চগড় থেকে বাংলাবন্ধ হয়ে ভারতের শিলিগুড়ির সাথে এ রেল যোগাযোগ সরাসরি সংযুক্ত হবে। এর ফলে ভারত, নেপাল ও ভুটান সরাসরি রেল পথে পণ্য পরিবহনে মংলা বন্দর ব্যবহারের সুযোগ পাবে। এই রেলপথের মধ্যদিয়ে জাতীয় অর্থনীতির অগ্রগতিতে বড় ধরনের ভূমিকা রাখবে এ মংলা বন্দর।

এ সময় খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশিদ, মংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আফসানা ইয়াসমিন, মংলা-খুলনা রেল প্রকল্পের নির্বাহী প্রকৌশলী আ রহিম উপস্থিত ছিলেন। পরে মন্ত্রী মংলা-খুলনা রেল লাইন ও খুলনার রূপসা নদীর উপর নির্মিতব্য রেল সেতু কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন করেন। বিগত ২০১৫-১৬ অর্থ বছরে দক্ষিণাঞ্চলের সাথে যোগাযোগ বাড়াতে সরকার মংলা- খুলনা রেললাইন নির্মাণের প্রকল্প হাতে নেয়।

উল্লেখ্য মংলা-খুলনা নির্মাণাধীন রেললাইন প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে তিন হাজার ৮০১ কোটি ৬১ লাখ টাকা। এর মধ্যে রেললাইনে ব্যয় হবে এক হাজার ১৪৯ কোটি ৮৯ লাখ টাকা, ব্রিজের জন্য এক হাজার ৭৬ কোটি ৪৫ লাখ টাকা ও জমি অধিগ্রহণে এক হাজার ৮ কোটি টাকা।