ময়মনসিংহে ইমামকে হেনন্থা করায় পুশিশের সাথে সমঝোতা, মুসল্লীদের মানববন্ধব স্থগিত

ময়মনসিংহ ব্যুরো:
ময়মনসিংহে ঈমামকে হেনস্থার ঘটনায় পুলিশের সাথে সমঝোতা বৈঠকের মধ্যদিয়ে তাবলীগের জামায়াতের মাওলানা জুবায়ের হোসেন পন্থী ওলামা-মুসল্লীদের মানববন্ধন স্থগিত করা হয়েছে। শহরের কাঁচিঝুলি সাহেব কোয়ার্টার মসজিদের ঈমাম মুফতি সাদিককে থানায় ডেকে এনে হেন্থার প্রতিবাদে শুক্রবার বাদ জুম্মা শহরের গাঙ্গিনারপাড়ে মানববন্ধন কর্মসুচীর ঘোষনা দেয় ইত্তেফাকুল ওলামা বৃহত্তর মোমেনশাহী। গত ১৩জুন বৃহস্পতিবার দুপুর বারটার দিকে কাঁচিঝুলি সাহেব কোয়ার্টার মসজিদের ঈমাম মুফতি সাদিককে মসজিদ থেকে ডেকে এনে কোতুয়ালি থানায় তিন ঘন্টা আটকে রেখে হেনস্থা করা হয় বলে অভিযোগ ওঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধ।
ইত্তেফাকুল ওলামা সুত্রে জানা যায়, মাওলানা সাদ কান্দলভী পন্থী একটি জামাত ১৩জুন দুপুর বারটায় কাঁচিঝুলি সাহেব কোয়ার্টার মসজিদে প্রবেশ করতে চাইলে মাওলানা জুবায়ের হোসেন পন্থী স্থানীয় মুসুল্লিরা বাধা দেন । পরে পলিশেকে খবর দিখে পুলিশ গিয়ে মসজিদের ঈমাম মুফতি সাদিককে থানায় ডেকে এনে তিন ঘন্টা আটকে রাখেন। এর পতিবাদে মানববন্ধনের কর্মসুচী ঘোষনা করেন ওলামা-মুসল্লীরা।
মানববন্ধন কর্মসুচীর খবর পেয়ে তা স্থগিত করতে পুলিশের পক্ষ থেকে ব্যাপক তৎপরতা শুরু হয়। ১৪ জুন শুকবার সকালে আকুয়া বাইপাস মার্কাজ মসজিদে যান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আল আমিন, কোতুয়ালী থানার ওসি তদন্ত মুনসুর আহামেদসহ পুলিশের একটি দল। সেখানে তাবলীগের মুরুব্বী ও ওলামাদের সাথে প্রায় দুই ঘন্টা বৈঠক শেষে  মানববন্ধন স্থগিতে রাজী হন তাবলীগের মুরুব্বীরা। এ বিষয়টি নিশ্চিত করেন ইত্তেফাকুল ওলামার জেলা সভাপতি মুফতি মুহিব্বুল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতি শরীফুর রহমান ।
এ দিকে কর্মসুচী স্থগিতের খবর সবার কাছে না পৌছায় ১৪ জুন শুক্রবার বাদ জুম্মা শত শত মুসুল্লী শহরের গাঙ্গিরাড়পাড় মোড়ে জমায়েত হন। জমায়েতে আসেন ইত্তেফাকুল ওলামা কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা পরিষদের সভাপতি মাওলানা আব্দুর রহমান হাফেজ্জী, কেন্দ্রীয় কার্যকরী পরিষদের সভাপতি মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহ সাদী, ময়মনসিংহ জেলা শাখার সভাপতি মুফতি মুহিবুল্লহসহ নেতৃবৃন্দ। এসময় পুলিশ কর্মককর্তাদের সাথে বৈঠকে মানববন্ধন স্থগিতের ঘোষনা দেওয়া হয়। ঘোষনার পর আগত মুসুল্লিদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে ইত্তেফাকুল ওলামার উপদেষ্টা পরিষদের সভাপতি মাওলানা আব্দুর রহমান হাফেজ্জী হুজুর সকলকে শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়ে মোনাজাত পরিচালনা করেন।
এ বিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আল্ আমীন বলেন, সাহেব কোয়ার্টার মসজিদের ঈমাম মুফতি সাদিককে থানায় ডেকে এনে সাদপন্থীদের মসজিদে প্রবেশে বাধাদানের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। পরে তিনি তাদেরকে মসজিদে ঢুকতে দিতে রাজি হওয়ায় ইমামকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।
প্রকাশ, গত বছর থেকে মাওলানা সাদ কান্দলভী ও মাওলানা জুবায়ের হোসেনপন্থীদের মধ্যে ময়মনসিংহ মার্কাজ মসজিদে এস্তেমা করার বিষয় নিয়ে উত্তেজনা চলে আসছে। সম্প্রতি চলতি মাসে তিনদিনব্যাপী মার্কাজ মসজিদে নতুন করে এস্তেমা করার ঘোষনা দিলে নতুন করে উত্তেজনা দেখা দেয়।