যুদ্ধ ঠেকাতেই ইরান সফরে এসেছি: অ্যাবে

নিউজ ডেস্ক :   জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবে মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি বজায় রাখার জন্য ‘গঠনমূলক ভূমিকা’ রাখতে ইরানের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্র ও তেহরানের মধ্যে সৃষ্ট উত্তেজনা নিরসনের লক্ষ্যে ইরান সফরকালে বুধবার তিনি এ আহ্বান জানান। যে কোন মূল্যে যুদ্ধ ঠেকাতে চান বলেও ঘোষণা দেন তিনি। ১৯৭৯ সালে ইরানে ইসলামি বিপ্লবের পর কোন জাপানি প্রধানমন্ত্রীর এটিই প্রথম তেহরান সফর। খবর এএফপি’র।

তেহরানে ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির সঙ্গে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে অ্যাবে বলেন, ‘মধ্যপ্রাচ্যের শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখার জন্য ইরানের গঠনমূলক ভূমিকা রাখা অত্যন্ত প্রয়োজন। যুদ্ধ এড়ানো শুধু এই অঞ্চলের জন্য নয়, সারা বিশ্বের উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির জন্য গুরুত্বপূর্ণ’

জাপানের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যেকোন উপায়ে সশস্ত্র সংঘাত অবশ্যই এড়াতে হবে। আমরা কেউই যুদ্ধ চাই না। যুদ্ধ ও উত্তেজনা ঠেকাতে আমরা সর্বোচ্চ ভূমিকা রাখবো। এবং এ কারণেই আমি এখানে এসেছি।’

গত বছরের মে মাসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ২০১৫ সালের পারমাণবিক চুক্তি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেয়ার পর থেকেই ওয়াশিংটনের সাথে তেহরানের সম্পর্কের চরম অবনতি ঘটে এবং এটা নিয়ে তাদের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়।

এমনাবস্থায় ওয়াশিংটন সম্পূর্ণ একতরফাভাবে ইরানের বিরুদ্ধে ফের নিষেধাজ্ঞা আরোপ এবং উপসাগরীয় অঞ্চলে তাদের সামরিক শক্তি বাড়ানো শুরু করে।

তিনি আরো বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও ইরানের মধ্যে সৃষ্ট এই উত্তেজনা নিরসনে জাপান তাদের সক্ষমতা অনুযায়ী সর্বোচ্চ ভূমিকা রাখতে আগ্রহী।

ওই সংবাদ সম্মেলনে রুহানি বলেন, বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞা আরোপের মাধ্যমে ইরানের ওপর যেসব অর্থনৈতিক চাপ সৃষ্টি করা হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র তা বন্ধ করলে মধ্যপ্রাচ্য ও বিশ্বে অত্যন্ত ইতিবাচক পরিবর্তন আসবে বলে তিনি আশা করেন।